দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে

সম্পাদকীয়
সম্পাদকীয় সম্পাদকীয়
প্রকাশিত: ০৯:৪৯ এএম, ৩১ জুলাই ২০২০

ঈদ সামনে রেখে নানা অপতৎপরতা বেড়ে যায়। সক্রিয় হয়ে ওঠে ‘অজ্ঞান পার্টি’ নামে পরিচিত প্রতারকচক্র। রাজধানীতে এই চক্রের হাতে পড়ে অনেকের সর্বস্ব খোয়া যাচ্ছে। এ অবস্থায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধি করতে হবে। বিশেষ করে ঈদ মৌসুমে সার্বিক জননিরাপত্তার দিকটিকে প্রাধান্য দিয়ে সে অনুযায়ী পরিকল্প গ্রহণ করতে হবে। জনদুর্ভোগ লাঘবে এর কোনো বিকল্প নেই।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে অজ্ঞান পার্টির ৫৫ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি)। সোমবার ও মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ঈদকে কেন্দ্র করে প্রতি বছরই অজ্ঞান পার্টির দৌরাত্ম্য বাড়ে। তাই বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এই চক্রের সদস্যরা চা-পান, জুসসহ বিভিন্ন খাবারের সঙ্গে নেশাজাতীয় ওষুধ মিশিয়ে টার্গেট করা ব্যক্তিকে খাওয়ায়। অজ্ঞান পার্টির অপতৎপরতার বিষয়টি অত্যন্ত ভয়ানক। এদের খপ্পরে পড়ে চেতনানাশক ওষুধের প্রতিক্রিয়ায় অনেকের মৃত্যু হয়েছে। অনেকে আবার সর্বস্ব হারিয়ে দীর্ঘমেয়াদি শারীরিক সমস্যায় ভুগেছেন।

অজ্ঞান পার্টির অপতৎপরতা নতুন নয়। আসন্ন ঈদ উৎসবে এদের অপতৎপরতা আরও বেড়ে গেছে। রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির একটি বিশাল চক্র রয়েছে। এরা মাঝেমধ্যে ধরা পড়লেও কিছুদিন পরই আবার জামিনে বেরিয়ে এসে অপরাধে জড়িয়ে পড়ে।

শুধু রাজধানীতে নয় দূরপাল্লার গাড়িতেও অজ্ঞান পার্টির অপতৎপরতা অব্যাহত। এদের খপ্পর থেকে মানুষজনকে বাঁচাতে হলে পুলিশের কঠোর ভূমিকা নিতে হবে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ছাড়া এদের অপতৎপরতা রোধ করা সম্ভব নয়। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়টি সামনে নিয়েই এগুতে হবে।

এইচআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]