পুনর্বাসন প্রক্রিয়া এখনই শুরু করুন

সম্পাদকীয়
সম্পাদকীয় সম্পাদকীয়
প্রকাশিত: ০৯:২৫ এএম, ১০ আগস্ট ২০২০

আশার খবর যে প্রলম্বিত বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। এরই মধ্যে অনেক নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। ফলে বানভাসি মানুষ কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে পাচ্ছে। এখন বন্যার ক্ষয়-ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে হবে।

সর্বগ্রাসী বন্যার ক্ষয়ক্ষতির মধ্যে প্রাণহানিও কম নয়। দেশের ৩৩টি বন্যাউপদ্রুত এলাকায় ৪০ দিনে ডায়রিয়া, পানিতে ডুবে, বজ্রপাতে, সাপের কামড়ে ও অন্যান্য কারণে ১৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ৩০ জুন থেকে ৯ আগস্ট পর্যন্ত এসব মৃত্যুর ৮৪ শতাংশই অর্থাৎ ১৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে পানিতে ডুবে।

বন্যাকালীন মৃত ১৭৪ জনের মধ্যে পানিতে ডুবে ১৪৬ জন, বজ্রপাতে ১৩ জন এবং সাপের কামড়ে ১৫ জনের মৃত্যু হয়। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় পানিতে ডুবে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে লালমনিরহাটে একজন, কুড়িগ্রামে একজন, জামালপুরে একজন, কিশোরগঞ্জে একজন ও গাজীপুরে একজনের মৃত্যু হয়। বন্যায় পানিতে ডুবে এবং সাপের কামড়ে মৃত্যুর ঝুঁকি বেশি থাকে। বাড়িঘরে পানিতে ডুবে যাওয়ায় ছোটশিশুদের নিয়ে মানুষ আতঙ্কে থাকে। পানিতে ডুবে যাদের মৃত্যু হয় তাদের অধিকাংশই শিশু।

এদিকে বন্যাকালীন মৃত ১৭৪ জনের মধ্যে লালমনিরহাটে ১৬ জন, কুড়িগ্রামে ২৩ জন, গাইবান্ধায় ১৫ জন, নীলফামারীতে দুইজন, রংপুরে তিনজন, সুনামগঞ্জে তিনজন, সিরাজগঞ্জে ১৪ জন, জামালপুরে ২৯ জন, টাঙ্গাইলে ২৮ জন, রাজবাড়ীতে একজন, মানিকগঞ্জে ১৭ জন, নেত্রকোনায় পাঁচজন, নওগাঁয় দুইজন, কিশোরগঞ্জে চারজন, ঢাকায় পাঁচজন, শরীয়তপুরে একজন, মুন্সিগঞ্জে তিনজন, গাজীপুরে একজন ও গোপালগঞ্জে দুইজনের মৃত্যু হয়।

বন্যার ক্ষয়ক্ষতি বহুমাত্রিক। জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবারের দীর্ঘস্থায়ী বন্যায়। নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে বিস্তীর্ণ জনপদ । রাস্তাঘাট অবকাঠামোর বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে। বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসন প্রক্রিয়া এখনই শুরু করতে হবে। ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট মেরামত, সংস্কার করতে হবে। নদী ভাঙন রোধে নিতে হবে দীর্ঘমেয়াদী পদক্ষেপ। বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সাথে সাথে নানা ধরনের রোগব্যাধি দেখা দেয়। বিশুদ্ধ পানি সংকটের কারণে দেখা দেয় ডায়রিয়া। এসব ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। বন্যার্ত মানুষ যেন বন্যার সব ধরনের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে সেটি নিশ্চিত করতে হবে।

এইচআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]