ধর্ম যার যার, উৎসব সবার

সম্পাদকীয়
সম্পাদকীয় সম্পাদকীয়
প্রকাশিত: ০৯:৩৩ এএম, ২৬ অক্টোবর ২০২০

বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজা। পাঁচদিনের এই শারদীয় দুর্গা পূজার আনুষ্ঠানিকতা শেষ হচ্ছে আজ। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ দেশে প্রতিটা উৎসব-পার্বণ আসে আনন্দের বার্তা নিয়ে। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। হিন্দু সম্প্রদায়ের দুর্গোৎসবে সেটি আবার প্রমাণিত হল।

শুক্রবার ছিল মহা সপ্তমী। সপ্তমীর পর অষ্টমী, নবমী শেষে দশমীতে (২৬ অক্টোবর) দুর্গাপূজা শেষ বা দেবীর বিসর্জন হবে আজ। মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এবার দুর্গাপূজায় কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করা হয়। আজ বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জন ও বিজয়া শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই দুর্গা পূজা। মণ্ডপে মণ্ডপে ঢাকের বাদ্য, শঙ্খ আর উলুধ্বনির শব্দ দেবী দুর্গার মর্ত্যে আগমনের কথা জানান দিচ্ছে। এ ছাড়া পূজার মন্ত্রোচ্চারণ, আরতি আর মাইকের আওয়াজে এখন মাতোয়ারা পূজা মণ্ডপগুলো। হিন্দুদের পাশাপাশি অন্য ধর্মের মানুষও এসব মণ্ডপে ঘুরতে আসায় উৎসব সার্বজনীন রূপ নিয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজা উপলক্ষে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়। রাজধানীসহ সারাদেশে ৩০ হাজারেও বেশি পূজামণ্ডপে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য। প্রতিটি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসবে তাই এক মহামিলন ঘটে সবার। এবারের পূজাও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও ঐতিহ্য রক্ষা করে উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে- এটি স্বস্তির দিক। সবাইকে বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা।

এইচআর/জেআইএম

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য। প্রতিটি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসবে তাই এক মহামিলন ঘটে সবার। এবারের পূজাও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও ঐতিহ্য রক্ষা করে উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে- এটি স্বস্তির দিক। সবাইকে বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]