ইরমা

ডা. বিএম আতিকুজ্জামান
ডা. বিএম আতিকুজ্জামান
প্রকাশিত: ১২:৪৫ পিএম, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭
ইরমা

সারা দুনিয়া জেনে গিয়েছে ‘ইরমার’ কথা। ভয়াবহ হ্যারিকেন ‘ইরমা’ ফ্লোরিডার দিকে ধেয়ে আসছে। গত এক সপ্তাহ ধরে অবিরামভাবে ‘ইরমার ‘গতিপথ, ভয়াবহতা, নিষ্ঠুরতা ফলাও করে সংবাদপত্র, টেলিভিশন আর সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে। সেই ‘ইরমা’ এখন আমাদের দোরগোড়ায়।

বিশাল এ হ্যারিকেন! বিশাল এর ব্যাপ্তি। প্রায় ছয় মিলিয়ন মানুষ নিজদের ঘর ছেড়েছে। আর দশ মিলিয়ন মানুষকে সরে যেতে বলা হয়েছে। এর মধ্যে ইরমার গতিপথ পরিবর্তন হচ্ছে। নতুন নতুন বিপদসংকেত আসছে অথবা মিলিয়ে যাচ্ছে। ফ্লোরিডাতে এটি হ্যারিকেনের সময়। অ্যাটলান্টিক আর ক্যারিবিয়ানের উষ্ণ জল হ্যারিকেনের জন্য মোক্ষম পরিবেশ তৈরি করে রেখেছে। তবে এ ধরনের শক্তিশালী এবং বিশালায়তনের হ্যারিকেন গত একশো বছরেও অ্যাটলান্টিকে তৈরি হয়নি।

ইরমাকে নিয়ে সবাই উৎকণ্ঠিত। সারা ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। আইন সঙ্গত ভাবে ঝুঁকিপূর্ণ সমুদ্র উপকূলীয় এলাকাগুলো থেকে সবাইকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। হাজার হাজার আশ্রয়স্থল খোলা হয়েছে। যে কেউ থাকতে পারবে সে গুলোতে। খাবার দাবার আর ঘুমানোর জন্য সব আয়োজন করা হয়েছে সেখানে। এমনকি পোষা জন্তুজানোয়ার পর্যন্ত রাখবার আয়োজন আছে সেখানে।

হাসপাতালগুলোতে সব ডাক্তারদের থাকার জন্য বাবস্থা সম্পন্ন। যে সব ডাক্তারদের জরুরিভাবে থাকাটা প্রয়োজন, তারা এ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়াতে হাসপাতালে থাকতে পারবেন পরিবারসহ। আমি কিছুক্ষণপর আমার পরিবারসহ হাসপাতালে চলে যাব। আমাদের বাসার ধারে কাছে দুটি আশ্রয়কেন্দ্র খুলেছে। একটি হোল আমাদের ‘অরলান্ডো ইসলামিক সেন্টার’ অন্যটি হোল ‘ জুইশ সেন্টার’।

দুটি উপাসনাগার তাদের দরজা খুলে দিয়েছে সব মানুষের জন্য। আমাদের প্রতিবেশি ডেভিড এ শহরের একজন খ্যাতিমান ইহুদী বাবসায়ী। ওর জন্ম নিউ ইয়র্কে। দাদা পোল্যান্ড থেকে পালিয়ে এসেছিলেন হিটলারের হাত থেকে বাচার জন্য। ডেভিডের জীবনের গল্প বড় চমৎকার। সে গল্প না হয় আর এক দিন বলব। তাঁর সাথে দেখা হোল আমাদের পাড়ার বড় গ্রসারির দোকানে। আমার দু সন্তানই আমার সাথে। আমরা দুজনেই হ্যারিকেনের জন্য প্রয়োজনীয় পানি, খাবারদাবার কিনছিলাম। আমি সব কিছুই একটু বেশি বেশি কিনছি দেখে ডেভিড খানিকটা রসিকতা করলো। আমি হেসে বললাম যে তোমাদের ‘ইহুদী সেন্টার আর আমদের ইসলামিক সেন্টারের ‘আশ্রয় কেন্দ্রের’ জন্য কিছু বেশি কিনছি। ডেভিড বলল, “ মজার ব্যাপার! আমার গাড়িতেও বেশ কিছু জিনিস রয়েছে একই কারণে। চল একসাথে যাই।”

দুজনে একসাথে যেয়ে আমাদের ইসলামিক সেন্টার আর জুইশ সেন্টারে আমাদের জিনিশপত্র গুলো নামিয়ে দিলাম। ডেভিড আমাদের ইসলামিক সেন্টার আগে আসেনি। আমাদের ইমাম তাঁকে ধন্যবাদ জানাতেই ডেভিড তাঁকে জিজ্ঞেস করলো, “তোমাদের কত খরচ হচ্ছে?” ইমাম সাহেব তাঁকে কাছাকাছি একটা নাম্বার বলতেই সে একটা চেক লিখে দিল। আমরা ওকে ধন্যবাদ জানালাম। ঘরে ফেরার পথে আমার ছেলেমেয়েদের সাথে এ দেশের মানুষের মানবিক গুণ গুলোর কথা আলোচনা করতে করতে ঘরে ফিরছিলাম। যত দিনতাই থাক না কেন, এ জাতি বিপদে এক হতে পারে নিমিষেই। জাতিধর্ম বর্ণ এক হয়ে যায় তখন। সেটি ইরমা হোক আর নচ্ছর কোন শাসক ই হোক না কেন।

আগামীকাল সকাল নাগাদ ইরমার দানবীয় শক্তি অরলান্ডোকে স্পর্শ করবে। আমরা কেউ এর থেকে সহজে মুক্তি পাচ্ছি না। আমাদের অনেকেরই ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হবে। তারপরও যেন কেউ জীবন না হারায়। এ সমাজের সবচাইতে যে ব্যাপারটি আমাকে সবচাইতে উদ্বেলিত করে তাহলো ‘মানুষের জীবনের মূল্য’। সে মানুষটি যত ছোটই হোক না কেন। পরম করুণাময়ের কাছে আমাদের প্রার্থনা সকল প্রাণীই যেন ইরমার হাত থেকে রক্ষা পায়।

লেখক : পরিপাকতন্ত্র ও লিভার বিভাগীয় প্রধান, ফ্লোরিডা হাসপাতাল, ফ্যাকাল্টি, কলেজ অব মেডিসিন, সেন্ট্রাল ফ্লোরিডা ইউনিভার্সিটি।

এইচআর/পিআর

এ সমাজের সবচাইতে যে ব্যাপারটি আমাকে সবচাইতে উদ্বেলিত করে তাহলো ‘মানুষের জীবনের মূল্য


আরও পড়ুন