প্রস্তাব রাখা না রাখা রাষ্ট্রপতির এখতিয়ার : ওবায়দুল কাদের


প্রকাশিত: ০৯:১৬ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৭
প্রস্তাব রাখা না রাখা রাষ্ট্রপতির এখতিয়ার : ওবায়দুল কাদের
ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর কাদের বলেছেন, ‘রাষ্ট্রপতির চিঠির প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন নিয়ে আলোচনা করেছে। এ সময় দলের পক্ষ থেকে চার দফা প্রস্তাবনা পেশ করা হয়েছে। এছাড়া একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য মূল প্রস্তাবনায় আরও ১১টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতির কাছে মোট ১০ পৃষ্ঠার একটি প্রস্তাবনা হস্তান্তর করা হয় দলের পক্ষ থেকে’।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের প্রস্তাব আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করেছি। প্রস্তাবগুলো রাখা না রাখা সম্পূর্ণ রাষ্ট্রপতির এখতিয়ার।

বুধবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন নিয়ে সার্চ কমিটিও গঠন করা যেতে পারে। এটাও রাষ্ট্রপতির এখতিয়ার। আইন প্রণয়ন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের ক্ষেত্রে সম্ভব হলে এখনই একটি উপযুক্ত আইন প্রণয়ন অথবা অধ্যাদেশ জারি করা যেতে পারে। সময় স্বল্পতার কারণে আগামী নির্বাচন কমিশন গঠনের ক্ষেত্রে তা সম্ভব না হলে পরবর্তী নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের সময় যাতে এর বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় এজন্য এখন থেকেই প্রক্রিয়া শুরু করা যেতে পারে।

তিনি বলেন, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান যে প্রক্রিয়ায় ইসি গঠন করেছিলেন সেটাও করা যেতে পারে। সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, আমাদের প্রস্তাবগুলো রাষ্ট্রপতি মনোযোগ দিয়ে দেখেছেন। এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য তাৎক্ষণিকভাবে উনি করতে পারেন না। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঐক্যের বিষয়ে আমি আশাবাদী।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের অভ্যুদ্বয় থেকে শুরু করে বর্তমান সময়ের ইতিহাসের বিবরণ দেয়া হয়। এ সময় এইচটি ইমাম, নূহ উল আলম লেনিন, মুকুল বোস, জাহাঙ্গীর কবির নানক, ডা. দীপু মনি, ড. হাছান মাহমুদ, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, মির্জা আজম, এনামুল হক শামীম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এফএইচএস/ওআর/এমএস