জাতীয় বাজেটে কৃষি খাতে বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১৯ পিএম, ২৬ এপ্রিল ২০১৮

জাতীয় বাজেটে উন্নয়নের জন্য শতকরা ৪০ ভাগ কৃষি খাতে বরাদ্দ করাসহ ১০ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্ট। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ একটি কৃষি প্রধান দেশ। এদেশে মোট গ্রামীণ শ্রমশক্তির শতকরা ৬০ ভাগের বেশি কৃষিকাজে নিয়োজিত। জিডিপির প্রায় ১৬ শতাংশ আসে কৃষিখাত থেকে। বর্তমান কৃষিখাত আজ নানামুখী সংকটে জর্জরিত। অন্যদিকে অসাধু মুনাফা লোভী ব্যবসায়ীদের কারণে কৃষকরা ফসলের ন্যায্য দাম পাচ্ছে না।

বক্তারা আরও বলেন, অন্যদিকে দেশে কৃষিভিত্তিক শিল্প স্থাপন করে বেকার সমস্যা সমাধানের সরকারি কোনো উদ্যোগ, রেশনিং ব্যবস্থা নেই। অপরিকল্পিতভাবে ইটভাটা, রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি, আবাসন, কলকারখানা নির্মাণের ফলে প্রতি বছর ১ শতাংশ হারে কৃষি জমি অকৃষি খাতে চলে যাচ্ছে। ফলে দেশের খাদ্য নিরাপত্তার মারাত্মক হুমকির মুখে পড়ার আশঙ্কা ক্রমেই বাড়ছে।

এ সময় আয়োজক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে বেশ কিছু দাবি তুলে ধরা হয়। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- উৎপাদন খরচের সঙ্গে শতকরা ৩০ ভাগ মূল্য যুক্ত করে কৃষি ফসলের দাম নির্ধারণ ও প্রতি ইউনিয়নে সরকারি উদ্যোগে কৃষকের কাছ থেকে ফসল ক্রয়ের ব্যবস্থা, ক্ষেতমজুরদের সারা বছরের কাজ, সাব-রেজিস্ট্রি, সেটেলমেন্ট, ভূমি অফিস, কৃষি ব্যাংক, পিডিএফ এবং পল্লী বিদ্যুতের ঘুষ দুর্নীতি ও হয়রানি বন্ধ করা।

এছাড়া গ্রামীণ প্রকল্পের বরাদ্দ বাড়ানো- ঘুষ দুর্নীতি অনিয়ম ও দলীয়করণ বন্ধ করা, হাটবাজারের ইজারাদের দূরত্ব ও দ্বিমুখী টোল আদায় বন্ধ করা, বিএডিসিকে সচল করতে করা, চাল ডালসহ সব নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমানো, অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের দূরত্ব বন্ধ এবং কৃষি জমি সুরক্ষায় আইন প্রণয়ন করতে হবে বলে দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক সংগঠনগুলো কেন্দ্রীয় সদস্য নিখিল দাস, খালেকুজ্জামান, বেলায়েত হোসেন, জুলফিকার আলী প্রমুখ।

এএস/এমআরএম/জেআইএম