‘বিএনপি নেত্রীর জন্য তথাকথিত শিক্ষিতের মায়াকান্না’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:২৬ পিএম, ২৪ মে ২০১৮

সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, ‘এতিমের টাকা আত্মসাতের দায়ে বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এখন কারাগারে। তার জন্য কিছু তথাকথিত শিক্ষিত মানুষের মায়াকান্না যেন উপচে পড়ছে। কিন্তু এ কথা ভুলে গেলে চলবে না যে, বেগম জিয়া এতিম শিশুদের টাকা লুটের দায়ে আদালত কর্তৃক দোষীসাব্যস্ত হয়ে বর্তমানে জেল খাটছেন।’

‘একজন দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তির পরিচয় একটাই, তিনি দুর্নীতিবাজ। একজন দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তির পক্ষে কথা বলাও দুর্নীতি করার শামিল।’

মতিঝিলের এজিবি কলোনি কমিউনিটি সেন্টারে শহর সমাজসেবা কার্যালয়-২, রমনা, ঢাকা আয়োজিত বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতাবই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমাদের চৌদ্দদলীয় জোট সরকার বর্তমানে দেশের দুর্নীতি ও মাদকের মূলোৎপাটনে কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কখনই এতিমের টাকা লুট করার মানসিকতা পোষণ করেন না। যারা এতিমের টাকা লুট করেছে জেলখানাই হবে তাদের আসল ঠিকানা।

ঢাকা বিভাগীয় সমাজসেবা পরিচালক তপন কুমার সাহার সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার এ অনুষ্ঠানে ঢাকা দক্ষিণ সিটির কর্পোরেশনের ৮, ৯, ১০ ও ১১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরগণসহ আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বয়স্ক ভাতা ও প্রতিবন্ধী ভাতা প্রদানের পাশাপাশি ঢাকায় বিধবা ভাতা প্রদানে মন্ত্রীর নিকট জোর দাবি জানান। এ বিষয়ে মেনন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই প্রথম ১৯৭৪ সালে দেশে সরকারিভাবে ক্ষুদ্র ঋণ ব্যবস্থার প্রচলন করেন। এরপর তার মেয়ে আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে প্রথম ক্ষমতায় এসে অসহায় মানুষের জন্য নানা রকম ভাতা প্রথার প্রচলন করেন। বিধবা ভাতা ঢাকার বাইরে চালু থাকলেও ঢাকায় এটি কী কারণে নেই তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। শীঘ্রই ঢাকায় বিধবা ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভাতা গ্রহণে গ্রামের মেম্বার বা চেয়ারম্যানরা উৎকোচ গ্রহণ করেন- এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মেনন বলেন, পূর্বে কী হয়েছে তা জানি না। আমি এ মন্ত্রণালয়ে থাকাকালীন দেশের কোনো প্রান্ত থেকে এমন দুর্নীতির অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেব।

অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী রমনা ও মতিঝিল থানা থেকে আগত অসহায়, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের হাতে ভাতাবই তুলে দেন।

এফএইচএস/এমএআর/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :