গণসংবর্ধনায় আবেগাপ্লুত শেখ হাসিনা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:৪৬ পিএম, ২১ জুলাই ২০১৮
ছবি-ফাইল

গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের সদস্যদের কথা স্মরণ করতেই অাবেগ অাপ্লুত হয়ে পড়েন। এ সময় অনুষ্ঠানস্থলের পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে। অনেককে চোখের পানি মুছতে দেখা গেছে।

বাকরুদ্ধ বঙ্গবন্ধু-কন্যা নিজেকে সামলে নিয়ে বলেন, এই সংবর্ধনা আমি দেশের জনগণকে উৎসর্গ করেছি।

শনিবার বিকেলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

ভারতের আসানসোলের কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি-লিট ডিগ্রি অর্জন, মহাকাশে সফলভাবে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট পাঠানো, অষ্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে গ্লোবাল উইমেন্স লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড অর্জন ও স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করা, চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থসহ বেশ কিছু আন্তর্জাতিক পুরস্কার পাওয়া এবং দেশের উন্নয়ন ও অর্জনে অনন্য সফলতার জন্য এ গণসংবর্ধনা দেয়া হয়।

এর অাগে দুপুর ১টা থেকে বিকেল সোয়া ৪টা পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলে। এর অাগে বিকেল সাড়ে তিনটায় প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানস্থলে অাসেন।

পবিত্র কোরঅান, গীতা, বাইবেল ও ত্রিপিটক থেকে পাঠের মাধমে মূল অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অাওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী। শুরুতে অভিনন্দন পত্র পাঠ করেন অাওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এ সময় সংবর্ধনামঞ্চে প্রধানমন্ত্রীর ছেলে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ছাড়াও কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০১ সালে গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দেইনি বলে ক্ষমতায় যেতে পারিনি। বিএনপি সেই মুচলেকা দিয়ে ক্ষমতায় গেছে। কিন্তু তারাও বিদেশে তো দূরে থাক, বাংলার মানুষকেই গ্যাস-বিদ্যুৎ দিতে পারেনি। এর আগে ৯৫ সালে ভোট চুরি করে ক্ষমতায় গেছে বিএনপি। কিন্তু মানুষের আন্দোলনের মুখে টিকে থাকতে পারেনি।

তিনি বলেন, ঘরে-বাইরে অনেক আঘাত এসেছে। কিন্তু কখনো নীতি থেকে সরে দাঁড়াইনি। সবসময় নীতি-আদর্শের মধ্যে থেকেছি। অর্জন সেসব নেতাকর্মীর, যারা দলের জন্য রক্ত দিয়েছেন, আত্মত্যাগ স্বীকার করেছেন। আমি জনগণের সেবক। তাদের সেবা করেই নিজের সার্থকতা খুঁজে পাই। জাতির পিতা মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকারের জন্য কাজ করেছেন। আমি তার কন্যা হিসেবে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি। তার স্বপ্নের উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে কাজ করে যাচ্ছি।

এর আগে অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মানে দেয়া মানপত্র পাঠ করা হয়। পরে মানপত্রের বাঁধাই করা একটি স্মারক তার হাতে তুলে দেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এফএইচএস/জেএইচ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :