‘নমিনেশন না পেলেও ভাই মন্ত্রী হবে’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:২৭ এএম, ২২ নভেম্বর ২০১৮

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ শেষ করেছে বিএনপির মনোনয়ন বোর্ড। গত ১৮ নভেম্বর ঠাকুরগাঁও-১ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী শেখ ইউনুসের সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু হয়ে বুধবার নারায়ণগঞ্জের নজরুল ইসলাম আজাদকে দিয়ে শেষ হয়। সবারই প্রত্যাশা তারা নিজ নিজ আসনে দলের মনোনয়ন পাবেন।

বিএনপির সাংগঠনিক বিভাগ অনুযায়ী চারদিন ধরে চলে এই কার্যক্রম। পুরো কার্যক্রমে লন্ডন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

সাক্ষাৎকার গ্রহণের শেষ দিন বুধবার সবচেয়ে বেশি মনোনয়ন প্রত্যাশীর সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। এদিন ময়মনসিংহ, ফরিদপুর এবং ঢাকা বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সাক্ষাৎকার দেন। তবে সাক্ষাৎকারে অংশ নেয়া মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা সুনির্দিষ্টভাবে পাওয়া যায়নি।

সাক্ষাৎকারের সময় সমর্থকদের নিয়ে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের আশপাশে না আসার নির্দেশনা থাকলেও মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অনেকেই তা গ্রাহ্য করেননি। সাক্ষাৎকারের শেষ দিনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অনুসারীদের সবচেয়ে বেশি শো-ডাউন দিতে দেখা গেছে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, মুহাম্মদ মুনির হোসেন চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের ভেতর থেকে বার বার মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অনুসারীদের চলে যেতে বললেও তাতে কারো ভ্রুক্ষেপ ছিল না।

এদিন বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ের সামনে কথা হয় সোহাগ মোল্লা নামে একজনের সঙ্গে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের গোপালগঞ্জ-১ আসন থেকে নমিনেশন চাচ্ছেন সেলিম ভাই, পটু ভাই, মেজবাহ ভাই। এই তিনজনের মধ্যে সেলিম ভাই এগিয়ে। তিনি খুব মেধাবী। তার নামে কোনো মামলা নাই। জেলায় তিনি অনেক দাপটে আছেন। সেলিম ভাই নমিনেশন না পেলেও দল ক্ষমতায় আসলে উনি মন্ত্রী হবেন।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের দুই তলার যে জানালা থেকে আব্দুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অনুসারীদের চলে যাওয়ার জন্য মাইকিং করছিলেন সেখানে দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন অসীমকে দেখিয়ে ঢাকা মহানগর বিএনপির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা জাগো নিউজের কাছে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

অসীমকে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘দেখেন দলের কী অবস্থা! শ্রমিক দল নেতা হত্যায় অভিযুক্ত ব্যক্তি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে। ওই হত্যাকাণ্ডের পর দেশের রাজনীতিতে ওনার দেখা নাই। এখন চলে এসেছেন।’

মহানগরের ওই নেতা তার নাম প্রকাশ না করতে অনুরোধ জানান।

কিশোরগঞ্জ-৬ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী দলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শরিফুল আলম সাক্ষাৎকার শেষে বলেন, ‘দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা সকল প্রার্থী ওয়াদা করেছি, আমার মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ভোটযুদ্ধের মাধ্যমে মুক্ত করবো।’

ফরিদপুরের একটি আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী চিত্রনায়িকা শায়লা বলেন, ‘আমরা নির্বাচন করবো, শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবো।’

ফরিদপুর-২ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির ঢাকা বিভাগের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল জাগো নিউজকে বলেন, ‘গত চার দিনে দলের চার সহস্রাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী সাক্ষাৎকারে অংশ নিয়েছেন। আগামী দুই দিন দিনের মধ্যে পরবর্তী কার্যক্রম শুরু হবে।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার বলেন, ‘গত চার দিনের তথ্য বলতে পারছি না। তবে বুধবার তিনটি বিভাগের ৯৪টি আসনের ৮৮৩ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়েছে।’

বিএনপির সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপুও একই তথ্য জানান।

তবে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের অপর সদস্য শায়রুল কবীর খান জানান, ‘বুধবার ময়মনসিংহ, ফরিদপুর এবং ঢাকা বিভাগের মোট ৯৬০ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়েছে। ময়মনসিংহ বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্সকে দিয়ে সাক্ষাৎকার শুরু হয় এবং ঢাকা বিভাগের নারায়ণগঞ্জের নজরুল ইসলাম আজাদকে দিয়ে শেষ হয়।’

গত চার দিনে মোট কতজন মনোনয়ন প্রত্যাশীর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়েছে এমন প্রশ্নে শায়রুল বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। তবে প্রায় তিন হাজারের মতো মনোনয়ন প্রত্যাশী সাক্ষাৎকার দিয়েছেন।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয় সূত্র জানায়, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মনোনয়ন বোর্ডের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্যরাই মূলত মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য।

এদিকে একটি সূত্র জানায়, আগামী ৮ ডিসম্বের বিএনপির চূড়ান্ত মনোনয়ন ঘোষণা করা হবে। তবে বিএনপি মহাসচিব বুধবার বলেছেন, শরিকদের সঙ্গে আলোচনা করে চূড়ান্ত মনোনয়ন ঘোষণা করবেন তারা।

কেএইচ/এমবিআর/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :