দেশ একজন প্রতিভাবান গর্বিত সন্তানকে হারালো : ফখরুল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:১৪ পিএম, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

কবি আল মাহমুদের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে তিনি এ শোক প্রকাশ করেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, তার (আল মাহমুদ) মৃত্যুতে দেশ একজন প্রতিভাবান গর্বিত সন্তানকে হারালো, যার অভাব সহজে পূরণ হবার নয়। গভীর অভিনিবেশ সহকারে সাহিত্য চর্চার পাশাপাশি দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধে তার অংশগ্রহণ ছিল সর্বদায় স্মরণীয়। সারাবিশ্বের বাংলাভাষী মানুষ তাকে বর্তমান কালের প্রধান কবি হিসেবে অভিহিত করেন।

বিবৃতিতে ফখরুল বলেন, দেশীয় সংস্কৃতিকে তাৎপর্যময় দৃঢ়ভিত্তির ওপর দাঁড় করাতে তার অবদান ছিল অপরিসীম। কবিতা, গল্প, উপন্যাস, শিশুতোষ, গীতিকার হিসেবে তিনি ছিলেন ঈর্ষণীয় উচ্চতায়। দীর্ঘদিন সাংবাদিকতা পেশায় যুক্ত থেকে স্বৈরশাহীর রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে মত প্রকাশের স্বাধীনতার জন্য কারাবরণ করতেও দ্বিধা করেননি। সংবাদপত্রে তার ক্ষুরধার কলাম ছিল অসহায়-উৎপীড়িত মানুষের মনের ভাষা। তিনি ছিলেন জাতীয়তাবাদী কবি।

তিনি আরও বলেন, এই যুগজয়ী যুগপুরুষের মৃত্যুতে দেশবাসীর ন্যায় আমিও মর্মাহত ও শোকার্ত। আমি মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং তার শোকাহত পরিবারবর্গ, ভক্ত ও শুভাকাঙ্খীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

গত ৯ ফেব্রুয়ারি রাতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় কবি আল মাহমুদকে ধানমন্ডির ইবনে সিনা হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। তিনি নিউমোনিয়াসহ বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে আল মাহমুদের বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

কেএইচ/আরএস/এমএস