সুস্থ থাকলে শেখ হাসিনার বিকল্প দরকার নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:০৭ পিএম, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
তরুণদের সুযোগ দিতে ভবিষ্যতে আর প্রধানমন্ত্রী হতে চান না বলে জানিয়েছেন শেখ হাসিনা, ফাইল ফটো

সমসাময়িক ও বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সেতুমন্ত্রী বলেন, তিনি (শেখ হাসিনা) যদি শারীরিকভাবে সুস্থ ও সবল থাকেন তাহলে তার কোনো বিকল্প ভাবার দরকার নেই।

শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

রাজনীতি ছেড়ে দিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টুঙ্গিপাড়ার গ্রামে গিয়ে থাকবেন -এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি (শেখ হাসিনা) এর আগেও বিদায় নিতে চেয়েছিলেন। আমাদের দলের কাউন্সিলর ও নেতাকর্মীদের চাপের মুখে তিনি ঘোষণা দিয়েও সরে যেতে পারেননি।

তিনি বলেন, আসলে তিনি (শেখ হাসিনা) অনেকদিন ধরেই বলছেন যে, ‘আর কত? আমি তো অনেকদিন দায়িত্ব পালন করলাম।’ বাস্তবতা হচ্ছে যে, এখনও শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প আমাদের পার্টিতে নেই এবং তার কোনো বিকল্প সমসাময়িক রাজনীতিতে বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনেও নেই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ৭৫’ পরবর্তীকালে গত ৪৩ বছরে তাকে কেউ অতিক্রম করতে পারেনি। তিনি সবাইকে অতিক্রম করে গেছেন এবং নিজেকেও। সে জন্য আমরা এবং রাজনৈতিক বিশ্লষকরা তাকে ‘স্টেটসম্যান’ বলেন। পলিটিশিয়ানরা ভাবেন পরবর্তী নির্বাচন নিয়ে, কিন্তু শেখ হাসিনা ভাবেন পরবর্তী জেনারেশন নিয়ে। সেই জেনারেশনের ভাবনাটাও সুদূরপ্রসারী, সেটা ২০৪১ সালের সীমারেখায় সীমিত নেই, সেটা চলে গেছে ২১০০ সালের ডেল্টা প্লানে। এ চিন্তা যারাই করেন যাদের মধ্যে রাষ্ট্রনায়কোচিত দূরদর্শী চিন্তা ভাবনা কাজ করে।

তিনি আরও বলেন, গত ৪৩ বছরে দক্ষতায়, যোগ্যতায়, সততায় শেখ হাসিনাকে কেউ অতিক্রম করতে পারেনি। এই ৫ বছরে তিনি যদি শারীরিকভাবে সুস্থ ও সবল থাকেন, আমার মনে হয় তার বিকল্পের চিন্তাভাবনার দরকার নেই। ৫ বছর পরে শেখ হাসিনা রাষ্ট্র পরিচালনায় অক্ষম হবেন, অসমর্থ হবেন -এটা আমরা এই মুহূর্তে ভাবতে পারি না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আর তিনি (শেখ হাসিনা) ছাড়তে চাইলেও সময় পরিস্থিতি তাকে ছাড়বে কি না, নেতাকর্মীরা তাকে ছাড়বে কি না -সেটাও তো আমাদের চিন্তা ভাবনা করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মাঝে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, কার্যনির্বাহী সদস্য আনোয়ার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এইউএ/আরএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :