‘দেশে গণতন্ত্র চাইলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪৫ পিএম, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
খালেদার মুক্তির দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবীদের মানববন্ধন

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী (বার) সমিতির সামনে ‘গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়া মুক্তি আইনজীবী আন্দোলন’ ব্যানারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে আইনজীবীরা মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, ‘কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া গণতন্ত্রে প্রতীক। তিনি কারাগারে গুরুতর অসুস্থ। যেকোনো সময় তার মৃত্যু হতে পারে। তাকে মুক্ত করে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। দেশে গণতন্ত্র চাইলে তাকে মুক্ত করতে হবে।’

দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভায় শতাধিক আইনজীবী অংশ নিয়ে অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি এবং বিচার বিভাগের দুর্নীতি বন্ধের দাবিতে স্লোগান দেন।

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুপ্রিম কোর্টসহ নিম্ন আদালতের সর্বস্তরের দুর্নীতি ও বিচারবিভাগের ওপর সরকারি হস্তক্ষেপ বন্ধের দাবিতে সংগঠনটি এ কর্মসূচি পালন করে। সংগঠনের সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য দেন সংগঠনের চেয়ারম্যান তৈমূর আলম খন্দকার, কো-চেয়ারম্যান মনির হোসেন, আবেদ রাজা, মাওলানা আবদুর রকিব, মহাসচিব এবিএম রফিকুল হক তালুকদার রাজা, আইনজীবী আসিফা আশরাফী পাপিয়া, মো. শহিদুল ইসলাম, ওয়াসেল উদ্দিন বাবু, ফারুক হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব আনিছুর রহমান খান প্রমুখ। মানববন্ধন পরিচালনা করেন সংগঠনের সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের মহাসচিব আইয়ুব আলী আশ্রাফী।

তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, গত সাত বছর ধরে সুপ্রিম কোর্ট বার বিএনপি সমর্থকরা পরিচালনা করছেন। কিন্তু কোনো আন্দোলন হচ্ছে না। আমরা আন্দোলনমুখী নেতৃত্ব চাই। এই ঘুনে ধরারা আবার নির্বাচন করলে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য কোনো আন্দোলন হবে না।

মনির হোসেন বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে দেশের ১ কোটি মানুষ ভোট দিতে পারেনি। দেশে আজ গণতন্ত্র নেই। অতীতে সব আন্দোলনের সূচনা হয়েছে সুপ্রিম কোর্ট থেকে। আইনজীবীরাই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন। আমরা আন্দোলন শুরু করেছি, এখান থেকে সারা দেশে আন্দোলন ছড়িয়ে দিতে হবে।

তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্ট বারে সিন্ডিকেট হয়েছে। এই সিন্ডিকেট ভাঙতে হবে। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য গতিশীল বার প্রয়োজন। সেই বার আমরা উপহার দেব। সেভাবে বার সৃষ্টি হলে গণতন্ত্র ও বেগম খালেদা জিয়াসহ সব রাজবন্দি মুক্ত হবেন। জনগণের অধিকার নিশ্চিত হবে।

সভাপতির বক্তব্যে গিয়াস উদ্দিন আহমেদ বলেন, সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের সব বারে আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে এবং খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে সবাইকে আন্দোলনে যোগ দিতে হবে।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থ। যেকোনো সময় কারাগারে তার মৃত্যু হতে পারে। তাকে মুক্ত করে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। তাকে মুক্ত করতে না পারলে দেশে অন্ধকার নেমে আসবে। দেশের যে ক্ষতি হয়েছে তার উদ্ধারে আন্দোলনে নামতে হবে।

এফএইচ/জেডএ/জেআইএম