আন্দোলন করতে পারলে খালেদা জিয়ার মুক্তি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৮ পিএম, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘বিএনপি এত বড় একটি রাজনৈতিক দল, সারাদেশে সংগঠন আছে, কর্মী-সমর্থক আছে; তবুও কেন আমাদের নেত্রীর মুক্তি হচ্ছে না?’

‘আমরা যদি ঐক্যবদ্ধভাবে রাস্তায় নামি এবং আন্দোলন করতে পারি তাহলে অবশ্যই খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে।’

আরও পড়ুন >> খালেদা ‘ঘুম থেকে না ওঠায়’ পেছাল শুনানি

বুধবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সভার শুরুতে কর্মীদের তোপের মুখে পড়েন দলটির শীর্ষ নেতারা। বিশেষ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের মুখে পড়েন।

‘আমাদের নেত্রী কেন জেলখানায়? কর্মসূচি নাই কেন? হল খালি কেন? নেতাকর্মীরা আসেনি কেন- এমন অনেক প্রশ্নবানে জর্জরিত হন তারা।

একপর্যায়ে মির্জা ফখরুল নেতাকর্মীদের সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, ‘কর্মসূচি হবে, ধৈর্য ধরেন। কর্মসূচি যে দেব তা তো আপনাদের পালন করতে হবে। ধৈর্য ধরেন, সবকিছুই হবে। আপনাদের ধৈর্য ধরতে হবে। এখানে বসে চিৎকার করলে হবে না।’

আরও পড়ুন >> বিশ্বব্যাপী সরকারের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি হচ্ছে : ফখরুল

‘বিশ্বব্যাপী আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি হচ্ছে’- এমন দাবি করে তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের ভুলে গেলে চলবে না যে, আমরা দীর্ঘদিন সংগ্রাম করে এসেছি। আমাদের এ লড়াই আরও সামনের দিকে নিয়ে যেতে হবে। লড়াইয়ে আমাদের আরও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

ফখরুলের বক্তব্য চলাকালে দর্শকসারিতে বসা কর্মীরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ সময় সিনিয়র নেতাদের উদ্দেশ্যে এক কর্মী বলেন, ‘বিএনপির কমিটি ভেঙে দেন। আজ নেতাকর্মীরা আসেনি কেন? কর্মসূচি নেই কেন?’

হঠাৎ করে কর্মীদের এমন আচরণে কিছু সময়ের জন্য সভার পরিবেশ বদলে যায়। বক্তব্য দেয়ার একপর্যায়ে কিছু সময়ের জন্য থেমে যান ফখরুল।

পরে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আপনাদের যে ক্ষোভ-ব্যথা সেটা আমরা বুঝি। কিন্তু একটা কথা আপনাদের সবসময় মনে রাখতে হবে- ফ্যাসিবাদের সঙ্গে যখন গণতন্ত্র লড়াই করে তখন এত সহজে সফলতা অর্জন করা যায় না।’

আরও পড়ুন >> কর্মীদের তোপের মুখে ফখরুল-মওদুদ

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ ও সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীমের যৌথ সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ।

আরও বক্তব্য দেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, যুগ্ম-মহাসচিব খাইরুল কবির খোকন প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স, সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, সহ-প্রচার সম্পাদক কৃষিবিদ শামিমুর রহমান, মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।

কেএইচ/এমএআর/পিআর