বিএনপি নেতাদের মুখের ওপর আমাদের নিয়ন্ত্রণ নেই

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:৪৪ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বর্তমান সরকারের সব কিছুর ওপর নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। শুধু নিয়ন্ত্রণ নেই বিএনপির নেতাদের মুখের ওপর। মুখের কথা বলা আমরা বন্ধ করব না। কারণ আপনাদের মুখের ওপর নিয়ন্ত্রণ নিলে গণতন্ত্র থাকবে না। তিনি বলেন, বিএনপি বড় বড় কথা বললেও তাদের নিজেদের দলের ওপর কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই।

আগামী ৩০ নভেম্বর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত যৌথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এসব কথা বলেন। আজ শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এ যৌথসভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাত।

বিএনপি মহাসচিবের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘আমাদের সরকারের সব কিছুর ওপর নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। এ কারণে ঠিক ঠাক মতো দেশ চলছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সমস্যা হয়, তা সৃষ্টি করে বিএনপির দুর্বৃত্তরা।’

বিএনপির সম্মেলন, নেতৃত্ব ও দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টিও তার বক্তব্যে টেনে আনেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘আপনি (মির্জা ফখরুল) তো আমারও এক বছর আগে বিএনপির মহাসচিব হয়েছেন। আমরা যথাসময়ে সম্মেলন করছি। কিন্তু আপনাদের এখন পর্যন্ত সম্মেলনের কোনো খবর নেই। আপনার দলের ওপর আপনার নিজেরই কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। কেউ কারও কথা শোনে না। ফলে বিএনপির মধ্যে কোনো গণতন্ত্র নেই। বিএনপির নেতৃত্বে চরম ব্যর্থতা আছে। এ কারণে খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে কোনো আন্দোলন আপনারা গড়ে তুলতে পারেননি। আন্দোলন করতে না পেরে কখনও পেঁয়াজের ওপর, কখনও লবণ ও চাল আবার কখনও পরিবহনের ওপর ভর করছেন। এ কারণে বিএনপির আন্দোলন মাঠে মারা গেছে।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘গণতন্ত্র থাকলে এক আওয়ামী লীগের মধ্যেই আছে। সঠিক সময়ে সম্মেলন করে নেতা নির্বাচন করে আমরা বারবার তার প্রমাণ দিয়েছি। সারাদেশেও আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।’

যৌথসভায় অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ সাদেক খান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেন। এসময় দলটির শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ ও সংসদ সদস্য হাজি মোহাম্মদ সেলিম উপস্থিত ছিলেন।

এফএইচএস/এসআর/এমএস