পুলিশ দিয়ে অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ করা যায় না

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৪৮ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, ‘পুলিশ দিয়ে ভোট নিয়ন্ত্রণ করা যায়, সভা-সমাবেশ নিয়ন্ত্রণ করা যায় কিন্তু অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। দেশের অর্থপাচার এবং ব্যাংক লুট হয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের আড়ালে অর্থ লোপাট হচ্ছে। দেশের অর্থনীতি সংকটে পড়ছে অথচ সর্বক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণহীন বেসামাল সরকার নীরবতা পালন করছে।’

সোমবার জেএসডি ঢাকা মহানগর সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারার প্রতিবাদে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে আ স ম আবদুর রব এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, “আওয়ামী সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজ, চাল, আলু, আটা, ময়দা, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের নিয়ন্ত্রণহীন ঊর্ধ্বগতি, মুদ্রাস্ফীতি, রাষ্ট্রীয় সম্পদের অপচয়, অবাধ লুটপাটে দেশের জনগণ দিশেহারা। দেশের ঘরে ঘরে আজ নীরব দুর্ভিক্ষ চলছে। জনগণের ত্রাহী অবস্থা। সরকার ১০ বছরে আটবার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে। এখন আবারও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারা করছে। এটা ‘মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’র শামিল। বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি করা হলে জনগণ তা কোনোভাবেই মেনে নেবে না।”

তিনি আরও বলেন, ‘জনজীবনের দুরবস্থার কথা বলায় বর্ষীয়ান নেতা মঞ্জুরুল আহসান খান ও সিপিবির নেতাদের ওপর পেটুয়া বাহিনী দিয়ে হামলা চালিয়েছেন- জনগণ সেটা ক্ষমা করবে না। ৩০ তারিখের ভোট ২৯ তারিখ কেটে নিয়েছেন, জনগণ সেটা ভোলেনি। ২৯ ডিসেম্বরের আগেই ক্ষমতা ছেড়ে দিন, জাতীয় সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন- এর কোনো বিকল্প নেই।’

‘আন্দোলনের জন্য জনগণ ঐক্যবদ্ধ, যেকোনো সময় গণবিস্ফোরণ ঘটবে। তাতে শুধু শাসক নয়, শাসন ব্যবস্থারও বদল হবে।’

ঢাকা মহানগর জেএসডি’র সমন্বয়ক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেএসডি স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য মোহাম্মদ সিরাজ মিয়া, বেগম তানিয়া রব, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, আবদুর রাজ্জাক রাজা, কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতা এস এম রানা চৌধুরী, আবদুল্যাহ আল তারেক, সামছুল আলম নিক্সন, আবুল মোবারক, মোশাররফ হোসেন, তৌফিক-উজ জামান পীরাচা প্রমুখ।

এইউএ/এমএআর/এমকেএইচ