খালেদার মুক্তির দাবিতে মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪১ পিএম, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

দলের কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

উত্তর বিএনপির দফতর সম্পাদক এ বি এম রাজ্জাক ও দক্ষিণ বিএনপির সাইদুর রহমান মিন্টু পৃথক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।

দক্ষিণের দফতর সম্পাদক মিন্টু স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সব থানায় বিক্ষোভ মিছিল হয়। পুলিশি বাধার মধ্যেও বিভিন্ন থানার নেতারা স্বর্তঃস্ফূর্তভাবে এ কর্মসূচি সফল করেন। কর্মসূচি চলাকালে বিভিন্ন স্থানে পুলিশি হামলায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ১২-১৩ জন নেতাকর্মী আহত হন।

রাজ্জাক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাড্ডা থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল গুলশান-বাড্ডা লিংক রোড থেকে শুরু হয়ে বাড্ডা সুবাস্তু টাওয়ারের সামনে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এ জি এম শামসুল হক।

bnp-2

পল্লবী থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বুলবুল মল্লিকের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন মাহমুদুল আলম মন্টু, আলমাস হোসেন, মো. সোহরাব হোসেন মোল্লা, খোকন, লরেন বিশ্বাস, আসরাফ গাজী, আলী মিরাজ, শওকত বাবুসহ থানা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা।

রূপনগর থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি মো. আব্দুল আউয়াল ও সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মজিবুল হক এবং বিএনপি নেতা আমজাদ হোসেন মোল্লার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

খিলক্ষেত থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সোহরাব খান স্বপন ও সাংগঠনিক সম্পাদক সি এম আনোয়ারের নেতৃত্বে হয়।

উত্তরখান থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি আহসান হাবীব মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর বেপারীর নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

bnp-2

মিরপুর থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল আজমল হাসপাতালের সামনে থেকে শুরু হয়ে ১০ নম্বর মিরপুরে শেষ হয়। থানা বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন আব্দুল ও সাধারণ সম্পাদক হাজী দেলোয়ার হোসেন দুলু এতে নেতৃত্বে দেন।

রামপুরা থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল আবুল হোটেলের সামনে থেকে শুরু হয়ে রামপুরা বাজারে গিয়ে শেষ হয়।

তুরাগ থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি আমানউল্লাহ ভূঁইয়া আমান ও সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ খোকার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

বিমানবন্দর থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি জুলহাস পারভেজ মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক মনির ভূইয়ার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

কাফরুল থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল রোকেয়া সরণির স্বপ্ন কনজুমার থেকে শুরু করে মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় শেওড়াপাড়া শাখার সামনে গিয়ে শেষ হয়। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি যুগ্ম সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন মতির নেতৃত্বে এই মিছিল হয়।

দক্ষিণখান থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি শাহাবুদ্দিন সাগর, সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর আলী ও সাংগঠনিক সম্পাদক আমিরুল ইসলাম বাবলুর নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

গুলশান থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি ফারুক হোসেন ভূঁইয়া ও সাধারণ সম্পাদক দ্বীন ইসলামের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

bnp4

ভাটারা থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। আদাবর থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্তারুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক মো. নাসিরের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

মোহাম্মাদপুর থানা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল থানার সভাপতি ওসমান গনি শাহজাহান থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী ইউসুফের নেতৃত্বে শুরু হয়।

বনানী থানা বিএনপির একটি মিছিল সরকারি তিতুমীর কলেজের সামনে থেকে শুরু করতে গেলে পুলিশের বাধায় মিছিলটি পণ্ডু হয়ে যায়। বনানী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাচ্চু, সিনিয়র সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান, এমদাদুল হক, শেখ হাবিবুর রহমান, বশির আহমেদ টিটু, ইমান হোসেন নূর, ওসমান গণি খোকন, মাহামুদুল্লাহ মনাসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ এতে উপস্থিত ছিলেন।

কেএইচ/জেডএ/এমকেএইচ