তাবিথের পোস্টারও লাগিয়ে দিতে চাইলেন আতিকুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:২১ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২০

বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘আপনারা মিথ্যা অভিযোগ করবেন না। আমাদের কোনো নেতাকর্মী, সমর্থক আপনাদের পোস্টার ছিঁড়ে নাই, ছিঁড়বে না। মিথ্যা অভিযোগ করবেন না। প্রয়োজন হলে আপনার পোস্টার দেন, আমি লাগিয়ে দেব।’

তিনি বলেন, ‘আপনারাই দেখুন, তাবিথ আউয়ালের পোস্টারে ছেঁয়ে গেছে সব জায়গা। আমরা যদি বলতাম, আমাদের নেতারা যদি বলতেন পোস্টার ছিঁড়তে, তাহলে তাবিথ আউয়ালের একটি পোস্টারও থাকত না। আমাদের ছিঁড়া লাগবে না। এসব অভিযোগ না করে শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকেন, ৩০ জানুয়ারি দেখা যাবে, নৌকা বিজয়ী হবেই ইনশাআল্লাহ্।’

বৃহস্পতিবার মিরপুর-১২ নম্বরের আলুব্দী ঈদগাহ ময়দান থেকে তার সপ্তম দিনের গণসংযোগের শুরুতে তিনি এসব কথা বলেন।

আতিকুল বলেন, ‘আপনারা ভোট দিয়ে যদি আমাকে নির্বাচিত করেন, আমি কথা দিতে চাই, আগামী ছয় মাসের মধ্যে আলোকিত ঢাকা হবে এলইডি বাতির মাধ্যমে। যেই ঢাকা স্থবির হয়ে আছে, সেই ঢাকাকে সচল করতেই হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। জলাবদ্ধতা নিরসন করতে হবে। গত নয় মাসে আমরা চিহ্নিত করেছি। আপনারা যদি নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেন, তাহলে আগামী পাঁচ বছরে সমস্যার সমাধান করব, ইনশাআল্লাহ্। স্তব্ধ ঢাকাকে সচল ঢাকা দেখতে হলে নৌকার বিজয়ের বিকল্প নেই। আমি গত ৯ মাসে যে কাজ করেছি তার চেয়ে বেশি কাজ করে আপনাদের সচল, সবুজায়ন, মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত ঢাকা উপহার দেব।’

atiqul-islam-1.jpg

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ৩০ জানুয়ারি আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হলে আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করব পরিকল্পিত নগরী গড়তে। ১৮টি নতুন ওয়ার্ড সাজাতে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। সে অনুযায়ী পরিকল্পিত ওয়ার্ড হিসেবে সেগুলো দৃশ্যমান হবে।’

সরস্বতী পূজা উপলক্ষে নির্বাচন পেছানোর যে দাবি উঠেছে এ প্রসঙ্গে আতিকুল ইসলাম বলেন, যদি নির্বাচন কমিশনের সুযোগ থাকে তাহলে আমি নির্বাচন কমিশনকে দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলতে চাই, যদি সম্ভব হয় অবশ্যই নির্বাচন পেছানোর দাবি জানাই।

আতিকুল ইসলামের একান্ত সচিব সাইফুদ্দিন ইমন জানান, বৃহস্পতিবার মিরপুর-১২ এর আলুব্দী ঈদগাহ ময়দানের পাশ থেকে সেকশন ১১, পলাশনগর, সেকশন-১২, পল্লবী, মিল্কভিটা এলাকায় গণসংযোগ করেন আতিকুল ইসলাম।

এর আগে গত শুক্রবার থেকে আতিকুল ইসলাম উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরের ৮ নম্বর রোডের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গণসংযোগ শুরু করেন।

প্রসঙ্গত, আগামী ৩০ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। দুই সিটির প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে ইভিএমের মাধ্যমে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।

এএস/জেডএ/এমএস