ভোট ডাকাতি করতে ইভিএমকে বেছে নিয়েছে সরকার : খসরু

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৩১ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২০

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন ইভিএম ব্যবহারে চ্যালেঞ্জের সুযোগ নেই মন্তব্য করে ভোটারদের সরব হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় এ আহ্বান জানান তিনি। জাতীয়তাবাদী সংগ্রামী দল কেন্দ্রীয় কমিটির এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

খসরু বলেন, ভারতে তো ইভিএমে ভোট দিতে গেলে একটি রশিদ দেয়া হয়। বাংলাদেশে সেটিরও ব্যবস্থা নেই। আপনি কাকে চ্যালেঞ্জ করবেন? তাই জনগণকে ইভিএমের বিরুদ্ধে কথা বলতে হবে।

তিনি বলেন, ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোট ডাকাতি হয়েছে। সে কথা মানুষের জানা হয়ে গেছে। আবার ব্যালট বাক্সে চুরি করতে গিয়ে ঝামেলা হয়, কখনও ভোটারের চেয়ে ভোট বেশি হয়ে যায়। তাই এবার ভোট ডাকাতি করতে সরকার ইভিএমকে বেছে নিয়েছে। ভোটের দিন আপনি বায়োমেট্রিক দেবেন, তারা তাদের মার্কায় টিপ দেবে। এতে কোনো ঝামেলা হবে না, হইচই হবে না। নীরবে ও নিঃশব্দে ভোট চুরির কাজটি সম্পন্ন হবে।

মো. জাহাঙ্গীর হোসেন হানিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য শিরিন সুলতানা, সংগঠনটির নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মো. আবু জাফর, হুমায়ুন কবীর খান প্রমুখ।

কেএইচ/জেএইচ/পিআর