‘আসাদের রক্তাক্ত শার্ট হয়ে ওঠে বাঙালির প্রাণের পতাকা’

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০১ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০২০

কোনো কোনো মৃত্যু ইতিহাস হয়ে যায়। অন্যায়ের বিরুদ্ধে বিদ্রোহে জনস্রোতের উদ্বেল জোয়ার আনে। আসাদের মত্যু তেমনি এক ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে। শহীদ আসাদের আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে বেগবান হয়েছিল স্বৈরাচার আইয়ুববিরোধী আন্দোলন। আর আসাদের রক্তাক্ত শার্ট হয়ে ওঠে বাঙালির প্রাণের পতাকা।

সোমবার নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে শহীদ আসাদ দিবস স্মরণে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি- ন্যাপ ঢাকা মহানগর এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, ঊনসত্তরের আন্দোলন ও শহীদ আসাদের আত্মত্যাগের ফলেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অভিযুক্তরা এবং নিরাপত্তা আইনে আটক ৩৪ জন নেতা সেদিন মুক্তি পান। গণতন্ত্রের দাবিতে স্বৈরশাসনবিরোধী এ সংগ্রামে গ্রাম-গঞ্জের খেটে খাওয়া মানুষ তখন শুধু সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেই থেমে থাকেনি, বরং নিজ নিজ ক্ষমতার বলয়ে অধিষ্ঠিত শোষক শ্রেণি বা তাদের প্রতিনিধিদের বিরুদ্ধেও সোচ্চার হয়ে ওঠে।

ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা বলেন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের ফলে গ্রাম ও শহরাঞ্চলে শ্রেণি চেতনার উন্মেষ এবং শ্রেণি সংগ্রামের আংশিক বিকাশ সাধিত হয়। পাশাপাশি ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে পূর্ব বাংলার জনগণের মধ্যে আলাদা রাষ্ট্র গঠনের আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি পায়। বাঙালি জাতীয়তাবাদ একাত্তরের স্বাধীনতা সংগ্রামে পথিকৃতের ভূমিকা পালন করার মতো পরিপুষ্ট হয়ে ওঠে।

এনএফ/এমকেএইচ