উন্নয়ন নয়, আন্দোলনের জন্য নির্বাচন করছে বিএনপি : তাপস

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৫ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০২০

ঢাকার উন্নয়নের জন্য নয়, আন্দোলনের জন্য বিএনপি সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। সোমবার (২০ জানুয়ারি) রাজধানীর খিলগাঁও রেলগেটের পাশে জোর পুকুর মাঠে থেকে ১১তম দিনের মতো নির্বাচনী গণসংযোগ শুরু করার আগে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

তাপস বলেন, আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী, তারা কিন্তু এই নির্বাচনে ঢাকার উন্নয়নের জন্য নয়, ঢাকাবাসীর সেবা করার জন্য নয়, ঢাকাবাসীর কষ্ট লাঘবের জন্য নয়, উন্নত ঢাকা উপহার দেয়ার জন্য নয় বরং তারা বারবার বলছে এটা তাদের একটি আন্দোলনে অংশ। তাদের নেত্রীকে মুক্ত করার আন্দোলনের অংশ হিসেবে এটি দেখছে। আমি মনে করি না, ঢাকাবাসী সেটাকে গ্রহণ করবে।

তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি ঢাকাবাসী আমাদের প্রাণের ঢাকাকে ভালোবাসে এবং তারা উন্নত ঢাকা চায়। সেই প্রেক্ষিতে ১ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনে আমি আশা করব, ঢাকাবাসী একটি নব সূচনা গড়ার লক্ষ্যে এই সুযোগ নেবে। উন্নত ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে তারা সকলেই ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে তাদের সেবক নির্বাচিত করবে। আমাদের সেবা করার সুযোগ দেবে।

ঢাকা দক্ষিণের জন্য আওয়ামী লীগ মনোনীত এ মেয়র প্রার্থী বলেন, আমরা যে উন্নয়নের রূপরেখা দিয়েছি; আমি বিশ্বাস করি ঢাকাবাসী সেটা সাদরে গ্রহণ করেছে। এভাবে উন্নয়নের রূপরেখা কেউ এই নির্বাচনেও দেয়নি, এর আগেও কেউ দেয়নি। সুনির্দিষ্ট রূপরেখার আওতায় উন্নত ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে আমরা বিস্তারিত নির্বাচনী ইশতেহারে প্রকাশ করব।

তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা যতটুকু ঢাকাবাসীর কাছে তুলে ধরেছি, ঢাকাবাসী সেটা স্বতঃস্ফূর্তভাবে গ্রহণ করেছে। আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার প্রণয়নের কার্যক্রম চলছে। আমাদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি ইশতেহার নিয়ে কাজ করছে। আশা করছি, আর ২-১ দিনের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ ইশতেহার ঢাকাবাসীর কাছে প্রকাশ করতে পারব।

ইভিএম নিয়ে বিএনপি আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে; সাংবাদিকরা এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তাপস বলেন, এখন নতুন করে ইভিএমের ব্যাপারে তারা (বিএনপি) কথা বলছে। আমি তো ঢাকার জনগণের মধ্যে এ ব্যাপারে কোনো শঙ্কা লক্ষ্য করিনি। বরং আমি মনে করি, আধুনিক প্রযুক্তি সবাই সাদরে গ্রহণ করেছে। একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে, অংশগ্রহণ নির্বাচনের মাধ্যমে, প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনে ঢাকাবাসী তাদের সেবক নির্বাচিত করবে।

বিএনপির পক্ষে বার বার আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সমর্থিত এ মেয়র প্রার্থী বলেন, আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ নির্বাচনী প্রচারণা যতদিন চলবে ততদিন এটা হতে থাকবে। এটা একটি তাদের (বিএনপি) রাজনৈতিক কৌশল। আমি আচরণ বিধি লঙ্ঘনের কোনো নিদর্শন দেখছি না। এটা নিছক অভিযোগ করতে হয় বলে তারা করছে।

হকার মুক্ত ঢাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তাপস বলেন, পর্যায়ক্রমে একটি মহাপরিকল্পনার আওতায় আমাদের ঢাকাকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও সচল হিসেবে গড়ে তুলবো। সেখানে রাস্তা হোক বা ফুটপাত হোক যেগুলো অবমুক্ত করার আমরা ব্যবস্থা নেব। তবে এটা পর্যায়ক্রমে। কারণ, আমাদের যারা ফুটপাতে হকারের ব্যবসা করে তারা আসলে শোষিত। তাদের শোষণ করা হয় বিভিন্ন মিটিংম্যানের আওতায়। আমরা তাদের জন্য কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করব।

তিনি বলেন, এর আগে হকারদের জন্য পুনর্বাসনের কথা বলা হলেও কার্যকর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। আমরা অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে রাস্তা নির্ধারণ করে তথ্য ভান্ডার তৈরি করে পর্যায়ক্রমে হকারদের পুনর্বাসন করব।

এ সময় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোর্শেদ কামাল, যুব লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন মহি, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এইউএ/আরএস/এমকেএইচ