আ.লীগের মনোনয়ন সমালোচনায় আলাল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল আওয়ামী লীগের মনোনয়নের সমালোচনা করে বলেছেন, আওয়ামী লীগে অনেক সিনিয়র নেতা থাকা সত্ত্বেও উত্তরে একজন ব্যবসায়ীকে এনে মেয়র পদে মনোনয়ন দিয়েছেন। আরেক জন ব্যবসায়ী ধরে এনে ঢাকা-১০ আসনে মনোনয়ন দিয়েছেন। মোজাফফর হোসেন পল্টুর মতো ঐতিহ্যবাহী আওয়ামী লীগার ঢাকায় রয়েছেন। মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন নব্বইর গণআন্দোলনের অন্যতম সৈনিক। তার মতো নেতৃত্ব যেখানে রয়েছে, ছাত্রলীগ থেকে রাজনীতি করে আসা জাহাঙ্গীর কবির নানকদের মতো নেতৃত্ব যেখানে রয়েছে, সেখানে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সুপ্রিম কোর্ট বার মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি আয়োজিত একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলাল বলেন, অর্থাৎ সেই সিরাজউদ্দৌলার কাহিনি-কাশিমবাজার কুঠিতে গিয়ে যখন সিরাজউদ্দৌলা হাতেনাতে ধরলেন, সবাইকে ধমকালেন, সবাইকে শাসন করলেন কিন্তু জগৎ সেনের কাঁধে হাত দিয়ে বললেন, জগৎ সিংকে আমি কিছু বলব না। কারণ টাকা আমারও দরকার।

আওয়ামী লীগের সমালোচনায় আলাল আরও বলেন, ভাষা, কৃষ্টি-কালচার ও রাজনীতি- সবদিক থেকে সবচেয়ে নিকৃষ্ট রাজনৈতিক দল হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের ইতিহাসের সবচেয়ে নিকৃষ্টতম সরকার হচ্ছে এ বর্তমান সরকার।

তিনি বলেন, আজকে এই সরকার সব কিছুকে বিসর্জন দিয়েছেন। দেশের ঐতিহ্য, দেশের স্বাধীনতা, ভাষা দিবসের মহত্ত্ব, তাৎপর্য, গণতন্ত্র ও শহীদদের আত্মত্যাগ সব কিছুকে বিসর্জন দিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে সেটাকে হালাল করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এই হালাল করার চেষ্টাকে প্রতিহত করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য নিজেকে যতটা নিয়োজিত করতে পারব, তার মধ্যে এই মহান মাতৃভাষা দিবসের মূল তাৎপর্য খুঁজে পাব।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। এছাড়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সেলিমুজ্জামান সেলিম, সহ-জলবায়ু বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, মহিলা দল সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, ছাত্রদলের সাধারাণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহিন, মহিলা দলের যুগ্ম-সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেএইচ/এসআর/জেআইএম