চসিক নির্বাচনে বিদ্রোহীরা সরে দাড়াঁচ্ছেন : ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৯:৩৬ পিএম, ১৯ মার্চ ২০২০

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে দলীয় সমর্থনের বাইরে সব বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচন থেকে সরে যাবেন বলে জানিয়েছেন চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রধান সমন্বয়ক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি।

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) বিকেলে নগরের একটি হোটেলে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা জানান।

ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, দলীয় সমর্থন না পেয়ে যারা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন তাদের আমরা বুঝিয়েছি। তারা নির্বাচন থেকে সরে যেতে সম্মত হয়েছেন। এখন যেহেতু প্রার্থীতা প্রত্যাহারের সুযোগ নেই, তাই তারা দলীয় সমর্থিত প্রার্থীকে সমর্থন দেবেন এবং প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন।

তিনি বলেন, ২৯ মার্চ যে নির্বাচন হবে, সেখানে প্রার্থী অনেক দাঁড়িয়েছে। এই নির্বাচনে আমাদের মনোনয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। ওনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে মনোনয়ন পেয়েছেন সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী। ওই সভায় কাউন্সিলর মনোনয়ন দেয়া হয়। যেহেতু নৌকা প্রতীক একজন মেয়র প্রার্থীকে দেয়া হয়েছে, অন্যরা (কাউন্সিলর) নৌকা পায় নাই। কিন্তু মনোনয়নের বাইরেও কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে অনেকে দাঁড়িয়েছেন। তাদের নিয়ে আমরা বৈঠক করেছি, প্রায়ই একমত পোষণ করেছেন যে, বৃহত্তর স্বার্থে, প্রধানমন্ত্রীর আনুগত্যের বহিপ্রকাশ হিসেবে তারা সরে দাঁড়াবেন। প্রার্থীতা প্রত্যাহারের সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় তারা প্রচারণা থেকে বিরত থাকবেন এবং দল সমর্থিতের পক্ষে এবং মেয়র প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাবেন।’

শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বিদ্রোহী প্রার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘দলীয় সাংগঠনিক শৃঙ্খলার প্রশ্নে আমরা কেউই কোনো ছাড় দেব না। শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। বিদ্রোহী সব প্রার্থী এই সিদ্ধান্তে একমত পোষণ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এটা যারা মানবে না, তাদের মানানোর ব্যবস্থা আমাদের আছে।’

দলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি দলীয় সাংগঠনিক শৃঙ্খলার প্রশ্নে কেউই কোনো ছাড় দেব না। দলীয় প্রার্থী হিসেবে শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে আমরা কেউ যে কোনো পর্যায় থেকে যদি মনে করি, আমরা বড় নেতা, আমার অবস্থান অনেক ভালো, আমাদের মনে রাখতে হবে, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করেছে বলেই আজকে আমাদের এত হাকডাক। এই সরকারের নেতৃত্বে আছে আওয়ামী লীগ। দলের সিদ্ধান্ত যদি না মানি তাহলে আমার অস্তিত্বও থাকবে না। এটা না বুঝে অতি উৎসাহী যারা মাঠে নামতে চাই, তাদের উপলব্ধি আসতে হবে।’

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৪১টি ওয়ার্ডে দলীয় সমর্থনের বাইরে এখনও প্রায় ১০৭ জন প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। যারা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময়েও প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেননি।

এ সময় নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, বন্দর-পতেঙ্গা আসনের সংসদ সদস্য এম এ লতিফ, নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু উপস্থিত ছিলেন।

জেডএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]