‘যা করেছি মুসলমান হিসেবে আল্লাহকে খুশি করতে করেছি’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:০৮ পিএম, ০১ জুন ২০২০
ফাইল ছবি

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী দলের চেয়ারপারসনের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা কমিটির সদস্য প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন বলেছেন, ‘এই ঈদ কারোর জন্য আনন্দপূর্ণ ছিল না। তবে আমি বলব আল্লাহ যা করেন নিশ্চয়ই তার পরিকল্পনা মাফিক করেন। এটি একটি পরীক্ষা আমাদের মানব সভ্যতার জন্য। আগামীতে নিশ্চয়ই তিনি ভালো কিছু রেখেছেন আমাদের জন্য।’

জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপকালে অবিভক্ত ঢাকার শেষ মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেন এসব কথা বলেন।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে এবারের ঈদ সবার কাছে অচেনা পরিবেশে হলেও ইশরাকের এবারের ঈদ ছিল আরেকটু অন্যরকম।

একদিকে পিৃতহারা, অন্যদিকে প্রথমবারের মতো ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে রাজনীতিতে পরিচিতি অর্জন করেছেন ইশরাক হোসেন। এ পরিস্থিতিতে এবারের ঈদ উদযাপন নিয়ে কথা তার সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।

এসময় ইশরাক হোসেন বলেন, প্রথমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যারা নিহত হয়েছেন তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। মহামারিতে আক্রান্ত এই বিশ্বের পরিবর্তিত অবস্থা কারোরই অজানা নয়। তার ওপর বাবা হারানোর বেদনায় আমার পুরো পরিবার একটি শোকের মধ্য দিয়ে কাটিয়েছি। সকালে বাসায় নামাজ আদায় করার পর আমার ভাই ও মায়ের সঙ্গে বাবার স্মৃতিচারণ করেছি। আমার বোন ও তার পরিবার নিউইয়র্কে অবস্থান করায় তাদের সঙ্গে ফোনে বাবার কথাই বেশি বলেছি। অতিরিক্ত জনসমাগম হওয়ার সম্ভাবনা এড়াতে আমরা বাবার কবর জিয়ারত করতে ঈদের দিন যাই নাই।

তিনি বলেন, যেহেতু একটি বিশেষ পরিস্থিতিতে এবার ঈদ করতে হয়েছে তাই আমরা বাসাতেই ঈদের দিন পার করেছি। আমাদের দলীয় নেতাকর্মী আত্মীয়-স্বজন সবার সঙ্গে ফোনে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছি। যেহেতু একটি রাজনৈতিক পরিচয় তৈরি হয়েছে তাই বহু মানুষের সঙ্গে আমার কুশল বিনিময় করার সৌভাগ্য হয়েছে। স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে আমরা অবশ্যই ঈদের দিন সকলের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার প্রোগ্রাম রাখতাম। তবে এবার সেটি হয়নি।

ইশরাক বলেন, যে কাজগুলো করেছি সেটি সম্পূর্ণ একজন মুসলমান হিসেবে মহান আল্লাহকে খুশি করার এবং তার নির্দেশনা পালন করার জন্য করেছি। তবে যেহেতু এখন আমি পুরোপুরি তৃণমূল রাজনীতির সঙ্গে জড়িত, তাই এই কাজটির পরিধি যেরকম বেড়েছে, তেমনি জনগণের প্রতি দায়িত্বও অনেক বেড়েছে।

তিনি বলেন, এই ঈদ কারোর জন্য আনন্দপূর্ণ ছিল না। তবে আমি বলব আল্লাহ যা করেন নিশ্চয়ই তার পরিকল্পনা মাফিক করেন। এটি একটি পরীক্ষা আমাদের মানব সভ্যতার জন্য। আগামীতে নিশ্চয়ই তিনি ভালো কিছু রেখেছেন আমাদের জন্য।

কেএইচ/এমএফ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]