বর্ধিত বাসভাড়া প্রত্যাহারের দাবি বাম জোটের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:০৪ পিএম, ০২ জুন ২০২০

বর্ধিত বাস ভাড়া প্রত্যাহার ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। একই সঙ্গে সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে জোটের পক্ষ থেকে।

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ও বাসদ নেতা বজলুর রশিদ ফিরোজ বলেন, করোনা মহামারিতে আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যু যখন উর্ধ্বমুখী, তখন প্রয়োজন ছিল আরো কঠোর লকডাউন। কিন্তু সরকার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং টেকনিক্যাল কমিটিসহ সকলের মতামত উপেক্ষা করে অফিস-আদালত, দোকানপাট, গণপরিবহনসহ সবকিছু খুলে দিয়ে জনগণকে আরো মৃত্যু ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে। গত ২ মাস সরকার শ্রমজীবীসহ সাধারণ মানুষের খাদ্য, আর্থিক নিরাপত্তাসহ কার্যত কোনো দায়িত্ব না নিয়ে ৪ কোটি চরম দারিদ্র্য মানুষকে বিপর্যয়ের মধ্যে ফেলেছে।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের শ্রমিকসহ লক্ষ-কোটি কর্মক্ষম মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এসময় সরকারের পক্ষ থেকে খাদ্য, নগদ অর্থসহ নানা সহযোগিতা নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর দরকার ছিল। কিন্তু সরকার নিজেদের দায়িত্ব পালন না করে সকলের মতামত উপেক্ষা করে লকডাউন তুলে নিয়ে সকল গণপরিবহন চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, সরকার বলেছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চলবে। অর্থাৎ ৫০% সিট খালি রাখবে। কিন্তু অভিজ্ঞতা বলে যে সরকার প্রশাসন, বিআরটিএ ফিটনেসবিহীন গাড়ী চলাচলে এবং লাইসেন্সবিহীন চালকের গাড়ি চালানো বন্ধ করতে পারে না, তারা কিভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ি চালাবে তা বোধগম্য নয়। তদুপরি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও অন্যায়ভাবে একতরফা মালিকদের স্বার্থ রক্ষায় বাসের ভাড়া ৬০% বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যা কর্মহীন ও বেকার হয়ে পড়াসহ করোনায় বিপর্যস্ত সাধারণ মানুষের জন্য মড়ার উপর খাড়ার ঘা হিসেবে বাড়তি চাপ তৈরি করবে। বাসের ভাড়া পূর্বেই যা বৃদ্ধি করা হয়েছিল সেটাই ছিল অযৌক্তিক। সেই সময়ও জনগণ তা মানেনি।

এইউএ/এনএফ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]