করোনার পর দেশে ইতিবাচক পরিবর্তন হবে: মোশাররফ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৬ এএম, ১৫ জুলাই ২০২০

করোনাভাইরাসের পর বাংলাদেশে ইতিবাচক পরিবর্তন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) এক অনলাইন সভায় তিনি এ কথা বলেন।

করোনাভাইরাসের ভয়াবহ পরিস্থিতি সামনে রেখে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন জেডআরএফ’র হোম হেলথ সার্ভিস উদ্বোধন উপলক্ষে ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপি, জেলা বিএনপি উত্ত- দক্ষিণ ও এর অঙ্গ-সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে ‘স্মার্ট হোম টেবিল’ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোশাররফ বলেন, বাংলাদেশের ইতিবাচক পরিবর্তন হবে। কেননা এভাবে দেশ চলতে পারে না। করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার পরে বাংলাদেশে সরকারি হিসেবে তারা যে অদক্ষতা ব্যর্থতা পরিচয় দিয়েছে, করোনা পরীক্ষা করার ব্যাপারে কেলেঙ্কারি করেছে এদেশের মানুষ এই সরকারকে আর বেশিদিন বাংলাদেশে থাকতে দেবে না।

তিনি বলেন, তাই একটি ইতিবাচক পরিবর্তনের সময় আমাদের নেতাকর্মীরা সাহস ও শক্তি রাখবেন। এত নির্যাতনের পরও আমাদের দল ছেড়ে কেউ যায়নি। আগামী দিনে ইতিবাচক পরিবর্তনে ভূমিকা রাখতে আপনারা সকলে ভালো থাকুন। সামাজিক দূরত্ব স্বাস্থ্যবিধি মেনে জনগণের পাশে থাকেন।

মোশাররফ বলেন, জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন এই করোনাভাইরাসে সংক্রমণ হওয়ার সাথে সাথে সারা পৃথিবীতে যখন সংক্রমণিত, বাংলাদেশ সরকার এটাকে অবজ্ঞা করছে অন্য একটি অনুষ্ঠানকে সফল করার জন্য, তখনই কিন্তু জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে সচেতনতা বিতরণের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু করি।

তিনি বলেন, আজকে এই জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন সারা বাংলাদেশে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে প্রশংসিত হয়েছে সবচাইতে বেশি যে জায়গায় প্রয়োজন জনগণকে সচেতন করা সেই সচেতন করার কাজটি ফাউন্ডেশন অত্যন্ত সফলভাবে করেছে তার পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবার ব্যাপারে যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

ডা. সেলিমের সঞ্চায়নায় জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ডা.ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। অন্যদের মধ্যে সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বক্তব্য দেন।

কেএইচ/এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]