মৃত ও আটক নেতাদের পরিবারে বিএনপির ‘ঈদ উপহার’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:০৭ পিএম, ০২ আগস্ট ২০২০

প্রাণঘাতী করোনায় মারা যাওয়া এবং কারাগারে আটক নেতাদের পরিবারের জন্য ‘ঈদ উপহার’ পাঠিয়েছে বিএনপি। ‘নানা ফলের ঝুড়ি’ ঈদ উপহার হিসেবে পরিবারগুলোকে দেয়া হয়। একই সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের খোঁজখবরও নেয়া হয়।

রোববার দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী মীরপুরে ঢাকা মহানগর উত্তরের প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক আহসানউল্লাহ হাসান এবং বংশালে কারাবন্দি ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকারের বাসায় গিয়ে পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন এবং ঈদ উপহার পৌঁছে দেন।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সস্পাদক আবদুল আউয়াল খানের আজিমপুরের বাসায়ও যান রিজভী। তবে প্রয়াত আউয়ালের পরিবার দেশে থাকায় তাদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলে খোঁজখবর নেন তিনি।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রাশেদুল হক ও ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত দফতর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারি এ সময় বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিবের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন।

bnp

উপহার প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারম্যান খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে ঈদ উপহার আমি পৌঁছিয়ে দিয়েছি। দলের শীর্ষনেতৃত্ব তাদের খোঁজখবর নিচ্ছেন। গতকাল ঈদের দিন সদ্য প্রয়াত জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে তাদের পরিবারের সদস্যদের খোঁজখবর নিয়েছি আমরা।’

তিনি বলেন, ‘ইসহাক সরকার আমাদের একজন তরুণ ও বলিষ্ঠ নেতা। তার বিরুদ্ধে ৩১৩টি মামলা রয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন কারাগারে। শুধুমাত্র মানসিকভাবে পর্যুদস্ত করার জন্য এবং গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার যে আন্দোলন সেই আন্দোলনে যাতে তারুণ্যের শক্তির উপস্থিতি না ঘটে সেজন্য ইসহাক সরকারকে কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে।’

করোনা মোকাবিলায় সরকারের ব্যর্থতা এবং ‘ভুতড়ে’ বিলে নিম্ন ও নিম্ন-মধ্যবিত্ত মানুষের দুর্ভোগের কঠোর সমালোচনাও করেন রিজভী।

কেএইচ/এমএআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]