সরকারকে আর সময় দিতে চান না খসরু

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৬ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২০২০

এই সরকারকে আর সময় দেয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। একই সঙ্গে, ভোট ডাকাতি ঠেকাতে দলীয় নেতাকর্মীদের সজাগ থাকতে বলেছেন তিনি।

সোমবার (২৬ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি একাংশ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় মোবাইলে যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষ তাদের দেয়া ভোটে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে দেশ পরিচালিত হতে দেখতে চায়। কিন্তু সেটা সম্ভব হচ্ছে না ভোট ডাকাতির কারণে। সরকার কিছুদিন আগে ঢাকা-৫ আসনে ভোট ডাকাতি করেছে। এর আগে বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় ভোট ডাকাতি করেছে। এখন উত্তরায় (ঢাকা-১৮ উপনির্বাচন) ভোট ডাকাতির প্রস্তুতি চলছে। সেখানে ইতোমধ্যে দুর্বৃত্তরা বিভিন্ন রকমের কার্যক্রম চালাচ্ছে। এর প্রতিবাদে আমাদের সবাইকে রুখে দাঁড়াতে হবে। আর বসে থাকলে হবে না।’

খসরু বলেন, ‘আজকে বাংলাদেশের মানুষ সবাই মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছে মুক্ত হওয়ার জন্য। বাংলাদেশ আজকের ধর্ষণ থেকে মুক্ত হতে চাচ্ছে, দুর্নীতিবাজদের হাত থেকে মুক্ত হতে চাচ্ছে, আইনের শাসন ফিরে পেতে চাচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষের জীবনে রক্ষার জন্য আমাদের সবাইকে একত্রিত হয়ে লড়তে হবে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ আজকে দুর্বৃত্তদের দেশ, ধর্ষণকারীদের দেশ হিসেবে পরিচিত হয়েছে। এসব থেকে মুক্ত হতে হলে যে ভোট ডাকাতি চলছে, এটা আমাদেরকে বন্ধ করতে হবে। এখন সময় এসে গেছে। আর ভোট ডাকাতি করতে দেয়া যাবে না।’

ঢাকা-১৮ উপনির্বাচনের দিকে জনগণকে চোখ রাখার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘একটি নির্বাচিত সরকার আমরা দেখতে চাই। একটি নির্বাচিত সংসদ আমরা দেখতে চাই। এই অনির্বাচিত সরকার বছরের পর বছর দেশ চালিয়ে যাচ্ছে। জনগণকে বাইরে রেখে, তাদের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে সম্পূর্ণভাবে আইন লঙ্ঘন করে তারা দেশ চালিয়ে যাচ্ছে। আর সেটা চালাতে একটা ভয়-ভীতি পরিস্থিতি তৈরি করেছে।’

তিনি বলেন, ‘এই সরকারকে আর সময় দেয়া যাবে না। উত্তরায় ভোট চলছে। আপনার চোখ রাখুন উত্তরা ভোটের দিকে। সেখানে যদি ভোট ডাকাতি হয়, তাদের প্রতিহত করার জন্য আপনাদের প্রস্তুত থাকতে হবে।’

এলডিপির সভাপতি আব্দুল করিম আব্বাসির সভাপতিত্বে মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব এম এ বাশার, সাংগঠনিক সম্পাদক বেলায়েত হোসেন, বিভাগীয় সম্পাদক হালিম প্রমুখ।

কেএইচ/এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]