বিএনপিপ্রার্থীর পরিবারের ভোট জোর করে নেয়া হলো নৌকায়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২১

সন্দ্বীপ পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জিএস আবুল বশার তার পরিবারের সদস্যদের ভোট প্রদানে বাধা দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন। তার পরিবারের এক সদস্যকে জোর করে নৌকায় দিতে বাধ্য করা হয়েছে বলেও অভিযোগ তার।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুর দুইটার দিকে সন্দ্বীপ প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন অভিযোগ করেন। এদিকে দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বিকেল ৪টায় সন্দ্বীপ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জিএস আবুল বশার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশের নির্বাচনী ব্যবস্থা সম্পর্কে সারা দেশবাসী অবগত আছে। তারপরেও জনগণের অধিকার রক্ষায় বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। শুরু থেকে চেষ্টা করেও আমি নির্বাচনে স্বাভাবিক কার্যক্রম চালাতে পারিনি।’

তিনি বলেন, ‘সকাল থেকে একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অল্প সংখক ভোটার কেন্দ্র আসলেও তাদের জোর করে নৌকায় সিল মারতে বাধ্য করা হচ্ছে। ভোট কেন্দ্রের বাইরে অপ্রাপ্ত বয়স্কদের উপস্থিত ছিল লক্ষণীয়।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘সকলে আমার বাড়ির কেন্দ্রে আমার পরিবারের সদস্যদের ভোট প্রদানে বাধা দেয়া হয়েছে। আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর হাত থেকে সিল নিয়ে নৌকায় মেরে দিয়েছে তাদের এজেন্ট।’

এদিকে স্থানীয় সূত্র জানায়, সকালে পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের কেন্দ্র বাউরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রের বাইরে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটে। এতে কিছুটা আতংকের সৃষ্টি হলেও পুলিশের দ্রুত হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে ছিল।

সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হলেও দু’একটি ভোট কেন্দ্র ছাড়া বাকি ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল একেবারেই কম। দুপুরের পরে অধিকাংশ ভোট কেন্দ্রগুলো ফাঁকা থাকে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, এ পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডের ১৭টি কেন্দ্রের ১০০টি ভোটকক্ষে বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ করা হয়। পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ৩৩ হাজার ২৬ জন।

নির্বাচনে সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া মেয়রপদে নৌকা প্রতীক নিয়ে মোক্তাদের মাওলা সেলিম ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আবুল বাশার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এমআরএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]