সরকার জনগণের মত প্রকাশের স্বাধীনতা দিতে নারাজ : ফখরুল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৮ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে সরকার জনগণের মত প্রকাশের স্বাধীনতা দিতে নারাজ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে গুলশানে দলটির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কারাগারে মারা যাওয়া লেখক মুশতাক আহমেদের প্রসঙ্গ টেনে তিনি এই মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে জনগণের সাংবিধানিক অধিকার, অন্যায়ের প্রতিবাদ করা বা তাদের মত প্রকাশ চরমভাবে ক্ষুণ্ন করছে। এর জন্য যতগুলো আইন করেছে তার মধ্যে নিকৃষ্টতম আইন হচ্ছে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন। এই আইনের মধ্য দিয়ে সরকার চরমভাবে একনায়কতান্ত্রিক একটি সরকারের পরিণত হয়েছে। সরকার কোনোভাবেই জনগণের ন্যূনতম সাংবিধানিক অধিকারকে সম্মান দিতে রাজি নয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি, প্রতিবাদ করছি। আমরা আশা করি, সরকার এসব হীন কর্ম থেকে বিরত থাকবে, সরে আসবে এবং জনগণের অধিকারকে প্রতিষ্ঠিত করার সুযোগ দেবে।

রোববার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ঘোষিত কর্মসূচি পালন করতে না দেয়া এবং পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আজ বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ লাঠিচার্জ, টিয়ার সেল ও শর্টগান ব্যবহার করে প্রায় শতাধিক নেতাকর্মীকে আহত করেছে। এখন অনেকেই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে এবং এর মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন বলে আমরা খবর পেয়েছি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা এই হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এই হামলা থেকে আবারও প্রমাণিত হলো, সরকার মত প্রকাশের কোনো স্বাধীনতা দিতে নারাজ। তারা গণতান্ত্রিক অধিকারগুলোকে হরণ করে নিয়েছে।

কেএইচ/এমএসএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]