বিএনপির ৭ মার্চ উদযাপনের কথা শুনে আ.লীগের গাত্রদাহ হয়েছে : আব্বাস

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৬ পিএম, ০৭ মার্চ ২০২১

বিএনপির ৭ মার্চ উদযাপনের কথা শুনে আওয়ামী লীগের গাত্রদাহ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। রোববার (৭ মার্চ) বিকেলে ‘ঐতিহাসিক ৭ মার্চ’ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আব্বাস বলেন, ‘৭ মার্চ পালনের কথা শুনে আওয়ামী লীগের গাত্রদাহ হয়েছে। কী আছে ৭ মার্চের ভাষণে? ৫০ বছরের ইতিহাসে ছোট একটা অংশ এই ৭ মার্চ। আল্লাহর রহমত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন। তাদের কোনো পুঁজি নেই। ওই একটা পুঁজি তাদের ৭ মার্চের ভাষণ।’

‘৭ মার্চের ভাষণটা যখন হয়, আমি আমার এলাকার লোকজনকে সঙ্গে নিয়ে মঞ্চের বাম দিকে বাঁশের ব্যারিকেডের সামনে উপস্থিত ছিলাম। ৭ মার্চ আমরা কি আশা করেছিলাম? বাঁশ নিয়ে গেছি, লাঠি নিয়ে গেছি… একটা ঘোষণা আসবে। কিন্তু না, কোনো ঘোষণা আসেনি। বরং ওই পাকিস্তানি কাঠামোর ভেতরে থেকেই কীভাবে মরহুম শেখ মুজিবুর রহমান সাহেব প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন সেই জিনিসটা করেছেন। রক্ত দিয়ে এই স্বাধীনতা এনেছে এই দেশের মানুষ।’

‘যদি কেউ বলেন, কোনো এক মেজরের ঘোষণায় এদেশ স্বাধীন হয় নাই, আমরাও বলতে পারি- ৭ মার্চের কারণে দেশ স্বাধীন হয় নাই। আমরা কাউকে ছোট করার জন্য কিছু বলতে চাই না। আমরা মনে করি, মরহুম শেখ মুজিবুর রহমান ও শহীদ জিয়াউর রহমানের অবস্থান ইতিহাস নির্ধারণ করে দেবে। আপনাদের বানানো ইতিহাস দিয়ে শহীদ জিয়াউর রহমানসহ অন্যদের নাম মুছে ফেলতে পারবেন না।’

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বিএনপি গঠিত জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য সচিব আবদুস সালামের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সেলিমা রহমান বক্তব্য রাখেন।

কেএইচ/এআরএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]