সরকারের সবকিছুতে ত্রুটি খুঁজে বের করা বিএনপির মজ্জাগত স্বভাব

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ০৪ মে ২০২১
ফাইল ছবি

সরকারের সবকিছুতে দোষ-ত্রুটি খুঁজে বের করা বিএনপির মজ্জাগত স্বভাবে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার (৪ মে) রাজধানীর সরকারি বাসভবন থেকে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

গণতন্ত্র নিয়ে কথা বলা বিএনপির মুখে শোভা পায় না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ক্ষমতায় থাকতে তারা ১৫ ফেব্রুয়ারির ভোটারবিহীন নির্বাচনের কলঙ্কিত অধ্যায়ও এদেশে সৃষ্টি করেছে। বিএনপি নেতারা পূর্ণিমার আলো ঝলমলে রাতেও অমাবস্যার অন্ধকার দেখতে পান।

নির্বাচন ব্যবস্থাকে দলীয়করণ করার রেকর্ডে বিএনপি চ্যাম্পিয়ন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা এক কোটি সোয়া লাখ ভুয়া ভোটার দিয়ে আজিজ মার্কা প্রহসনের নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিয়েছিল। যার কারণে দেশে ১/১১'র মতো অবস্থা তৈরি হয়েছে।

মাগুরা ও ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনের সেই জালিয়াতির কথা দেশের মানুষ এখনও ভুলে যায়নি বলেও উল্লেখ করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, বিএনপির আমলে সকাল ১০টার মধ্যেই ভোট প্রদান শেষ করে দেয়া হয়েছিল। তখন চট্টগ্রামের একটি কেন্দ্রে ভোট গণনার আগেই চূড়ান্ত ফলাফল রেডিও, টিভিতে ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। কাজেই বিএনপির মুখে নিরপেক্ষ নির্বাচন ব্যবস্থার বুলি ‘ভূতের মুখে রাম রাম’ ধ্বনির মতো।

অসহায় কর্মহীন, খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য সাড়ে ৩৬ লাখ পরিবারকে নগদ অর্থ ও খাদ্যসহায়তা দেয়া হচ্ছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ বা দলীয় নেতাকর্মীদের আত্মীয়স্বজন দেখে নয়, বরং নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া পরিবারের তালিকা করে এবং যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে এসব সাহায্য দেয়া হচ্ছে।

সরকার গণমাধ্যমকে নিজের মতো করে নিয়েছে, ‘বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা প্রশ্ন করে ওবায়দুল কাদের বলেন, গণমাধ্যমের ওপর সরকারের যদি নিয়ন্ত্রণই থাকবে তাহলে প্রতিদিন তারা (বিএনপি) সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার আর মিথ্যাচার করে কেমন করে?’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনে করেন, আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থ বিএনপি এখনও টিকে আছে স্বাধীন গণমাধ্যম আছে বলেই।

এসইউজে/এসএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]