‘শেখ কামালের মতো নেতা চাই’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৬ পিএম, ০৫ আগস্ট ২০২১

‘অভিযানের মধ্য দিয়ে সমাজ থেকে এই অনৈতিকতা দূর করতে চাই। ইতোমধ্যে অভিযান শুরু হয়েছে। দেশের মতো দলেও এ অভিযান চলবে। আমরা ক্ষমতার ছত্রছায়ায় সুবিধাভোগী, ধান্ধাবাজ ও প্রতারক চাই না। চাই শেখ কামালের মতো আদর্শবাদী নেতা। অর্থনৈতিকভাবে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি কিন্তু নৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়ছি।’

বৃহস্পতিবার জাতির পিতার জ্যেষ্ঠ ছেলে শহীদ শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সভার আয়োজন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ।

এ সময় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজমসহ দলের শীর্ষনেতারা।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, অনেক রাজনীতিবিদদের সন্তানদের পদস্খলন হয়। কিন্তু শেখ কামালের মধ্যে আমরা উদ্যোম দেখেছি। তিনি বেঁচে থাকলে দেশ পরিচালনায় অনন্য ভূমিকা রাখতেন। বঙ্গবন্ধু এবং শেখ কামাল বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ অনেক আগেই উন্নত রাষ্ট্রের তালিকায় থাকত।

তিনি বলেন, যারা আওয়ামী লীগের নামে ভুয়া সংগঠন করে কার্ড ছাপিয়ে চাঁদাবাজি করছে, তাদের দল থেকে বিতাড়িত করতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে আমদেরও ভূমিকা রাখতে হবে। সহযোগী সংগঠন ছাড়া অন্য কোনো ভূঁইফোঁড় সংগঠন থাকার সুযোগ নেই উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, এসব সংগঠন করে আওয়ামী লীগের গায়ে কালিমা লেপন করা যাবে না। নেত্রী বিষয়টি কঠোর হস্তে দমন করছেন।

আলোচনায় অংশ নিয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, দল ক্ষমতায় থাকার কারণে অনেকে নেতা হতে উদগ্রীব হয়ে আছেন। কিন্তু তাদের আদর্শ নেই। আওয়ামী লীগ করতে হলে আদর্শ ধারণ করতে হবে। পদ-পদবি না পেয়ে নামের আগে পরে যারা ‘লীগ’ ও বঙ্গবন্ধু’র নাম দিচ্ছে, তারা আদর্শিক কর্মী হতে পারে না। আওয়ামী লীগের লাখ লাখ কর্মী আছে সবাই তো পদধারী না। আজকে যারা হঠাৎ করে নেতা হতে চায়, তারা ধান্ধাবাজ ও প্রতারক। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

হানিফ বলেন, আমরা অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে গেছি। কিন্তু নৈতিকভাবে আমরা পিছিয়ে গেছি। অভিযানের মধ্য দিয়ে সমাজ থেকে এই অনৈতিকতা দূর করতে চাই। অভিযান শুরু হয়েছে, চলতে থাকবে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, শেখ কামাল ছিলেন সাহসী সন্তান। ১৫ আগস্ট প্রতিরোধের প্রথম যোদ্ধা তিনি। প্রথমেই জীবন দিয়ে প্রমাণ করেছেন, বাঙালিরা ভিতু নয়। শহীদ শেখ কামালের মতো অসংখ্য সাহসী সন্তান আমাদের প্রয়োজন।

সুবিধাবাদীদের ব্যাপারে সচেতন থাকার নির্দেশনা দিয়ে নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘৭৫ সালের পর দেখেছি অনেকে রাজনীতি ছেড়ে দিয়েছে। তাদের মতো নেতা আমরা চাই না। আমরা শেখ কামালের মতো আদর্শবাদী নেতা চাই। যাদের হাত ধরে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, আগস্ট এলেই ষড়যন্ত্রের ডালপালা মেলে। এসব ডালপালার মূলোৎপাটন করতে চাই। জাতির পিতাকে রক্ষা করতে না পারা আমাদের ব্যর্থতা। এই দায় আমরা মোচন করতে পারব না।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী’র সভাপতিত্বে ও হুমায়ুন কবিরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি দিলীপ কুমার রায়, মিজবাউর রহমান, সাজেদা বেগম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী মোরশেদ হোসেন, মহিউদ্দিন মহি, মিরাজ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম সোরায়ার কবির, দফতর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ, আইন সম্পাদক অ্যাডভেকেট জগলুল কবির, বিজ্ঞান প্রযুক্তি সম্পাদক শরিফুল ইসলামসহ বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মী।

এসইউজে/এমএসএম/এমআরএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]