ঢাকার দুই মেয়রের পদত্যাগ চাইলেন ইসলামী আন্দোলন নেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪১ পিএম, ২৮ আগস্ট ২০২১

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার দায় নিয়ে এবং জাতীর কাছে ক্ষমা চেয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম (ডিএনসিসি) এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের পদত্যাগ দাবি করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি শেখ ফজলে বারী মাসউদ।

শনিবার (২৮ আগস্ট) রাজধানীর মোহাম্মদপুরে এক সভায় তিনি এই দাবি করেন। মাসউদ ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র নির্বাচনে হাতপাখা প্রতিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

তিনি বলেন, মশা নিধনে টেকনিক্যাল কমিটি ও কীটতত্ত্ববিদদের পরামর্শ কতটুকু মূল্যায়ন ও গ্রহণ করা হয় তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এছাড়া সারাবিশ্ব মশা নিধনের ক্ষেত্রে সময়োপযোগী ও বাস্তবসম্মত যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে তা আমাদের দেশ অনুসরণ করে বলে মনে হয় না। এখন মশা নিধনের নামে চলে মেগা বাজেট আর ফটোসেশন। যা একটি ফ্যাশনে পরিণত। অথচ মশা নিধন কোনো ফ্যাশন নয়। এটা জনগণের অধিকার। মশা নিধনের নামে ফটোসেশন ও দলীয় প্রচারণা নগরবাসীর সঙ্গে এক প্রকার তামাশা ছাড়া কিছুই না।

jagonews24

মশা, যানজট, জলাবদ্ধতা, কিশোর গ্যাং ও চাঁদাবাজিতে নগরবাসী অতিষ্ট উল্লেখ করে শেখ ফজলে বারী মাসউদ মেয়রদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের উচিত নগরবাসীর প্রতি আন্তরিক হয়ে প্রয়োজনে দিনরাত পরিশ্রম করে নগরকে বসবাসের উপযোগী করে তোলা। যদি আপনারা তা করতে না পারেন তবে ব্যর্থতার দায় নিয়ে দ্রুত পদত্যাগ করুন। নগরবাসীর প্রাপ্য অধিকার নিশ্চিত করতে আপনাদের পরিবর্তনের বিকল্প নাই। নগরবাসীর প্রাপ্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে এবং সমস্যা দূর করতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রতিনিধিকে নগরপিতা বানাতে হবে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ঢাকা মহানগর উত্তরের প্রচার ও দাওয়াহ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন পরশ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮৪ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ নিয়ে সরকারি তথ্য মতে, চলতি বছর ৯ হাজার ৩০৪ ব্যক্তি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলো। এ বছর ইতোমধ্যে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪০ জন। যা বিগত ১৮ বছরের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু। প্রযুক্তির বৈপ্লবিক যুগে এ জাতীয় পরিসংখ্যান চরম লজ্জার ও উদ্বেগের।

এমএমএ/জেডএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]