উন্নয়ন হলে দেড় বছরে দুই কোটি মানুষ দরিদ্র হতো না: মান্না

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫১ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০২১

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘অনেকে বলেন দেশে গণতন্ত্র নেই, উন্নয়ন তো হচ্ছে। আমি বলি, দেশে কোনো উন্নয়নও হচ্ছে না, গণতন্ত্র তো নাই-ই।’

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশের সাবেক সভাপতি রুহুল আমিন গাজীর নিঃশর্ত মুক্তি ও সব সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) দুপুর ১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ করে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক অ্যাসোসিয়েশন (বিআরজেএ)।

সমাবেশে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘দেশে উন্নয়ন যদি হয়, তাহলে গত এক-দেড় বছরে দুই কোটি লোক দরিদ্র হয় কীভাবে? কয়জন বেকারের চাকরি হয়েছে? কয়টা কারখানা হয়েছে?’

তিনি বলেন, ‘মেগা প্রজেক্ট কয়েকটা ঠিকই হচ্ছে, যেখান থেকে তারা লুট করতে পারে। ১০ হাজার কোটি টাকার প্রজেক্ট ব্যয় বেড়ে ৬০ হাজার কোটি হয়ে যায়। এরা লুটেরা, এরা ভোট ডাকাত, এরা জুলুমবাজ। এরা মানুষের অধিকারে বিশ্বাস করে না, সাংবাদিকদের লেখার অধিকারেও বিশ্বাস করে না।’

মান্না বলেন, ‘স্বাধীনতার ঊষালগ্ন থেকে তারা (আওয়ামী লীগ সরকার) যখন ক্ষমতায় গেছে, তখন থেকেই গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এখনো কেউ গণতন্ত্রের কথা বললে, তার তুটি চেপে ধরছে। এ হলো তাদের অবস্থা।’

তিনি আরও বলেন, ‘রুহুল আমিন গাজী একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, তাকে সম্মান দেখাননি। তার মামলার ভিত্তি নেই, জামিন পাওয়ার অধিকার রাখেন। কিন্তু আপনারা জামিন দেবেন না। এভাবে সব সাংবাদিক বিশেষ করে প্রতিবাদী সাংবাদিক ও লেখকদের কলম স্তব্ধ করে দেওয়ার পাঁয়তারা করছে।’

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএফইউজে একাংশের সভাপতি এম আব্দুল্লাহ, মহাসচিব নুরুল আমিন রুকন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সভাপতি কাদের গণি চৌধুরী, নয়া দিগন্তের সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন প্রমুখ।

আরএসএম/এএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]