উগ্র-বর্ণবাদ মানব সমাজের বড় শত্রু: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫১ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২১

সাম্প্রদায়িকতা, উগ্রবাদ ও বর্ণবাদ মানব সমাজের সবচেয়ে বড় শত্রু বলে মন্তব্য করেছেন ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির বক্তারা।

রোববার (২৪ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা ও ভারসাম্যপূর্ণ সমাজ গঠনে আলেমদের ভূমিকা’ শীর্ষক এক বৈঠকে সংগঠনটির নেতারা এ মন্তব্য করেন।

তারা বলেন, এ মানবতার শত্রুদের প্রতিহত করতে হবে। এজন্য ঐক্যবদ্ধ হতে হবে দেশ, অঞ্চল ও বিশ্বের অসাম্প্রদায়িক মানুষকে। প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে মানুষ ও মানবতার দুষমনদের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশে যারা মন্দিরে কোরআন অবমাননা করেছেন, হিন্দুদের পূজামণ্ডপে আক্রমণ করেছে, মূর্তি ভেঙেছে এদের সবাইকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

বক্তারা আরও বলেন, বাংলাদেশে অস্থিতিশীলতা তৈরি করার জন্য একটি গোষ্ঠী একেকবার একেক ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করে। একবার করা হলো হেফাজত নিয়ে, একবার মূর্তি ও ভাস্কর্য নিয়ে, এখন করা হচ্ছে কুরআন অবমাননা নিয়ে।

বৈঠকে সব ধর্মীয় উপাসনালয় সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনার দাবি জানান বক্তারা।

তাদের আরও দাবিগুলো হলো- সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী ও এরসঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের আওতায় আনা, কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে কোনো পক্ষের, যে কোনো প্রকার প্রতিক্রিয়া বন্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে আরও কঠোর হওয়ার নির্দেশ দেওয়া, ফেসবুক এবং অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিএনপি-জামায়াত চক্র যে গুজব ছড়াচ্ছে তাদের প্রত্যেককে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের আওতায় এনে যথাযোগ্য শাস্তি প্রদান করতে হবে।

বৈঠকে আরও বক্তব্য রাখেন- দলটির চেয়ারম্যান মাওলানা মো. ইসমাইল হোসাইন, পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মো. ওমর ফারুক।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পার্টির অন্যান্য নেতা কাজী মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম, হাফেজ কারী মাওলানা আব্দুল মান্নান, মাওলানা মো. তাহেরুল ইসলাম প্রমুখ।

এমআইএস/জেডএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]