মানিকগঞ্জ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক নেতার নামে কেন্দ্রে অভিযোগ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩১ পিএম, ২৭ অক্টোবর ২০২১

বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার সাবেক দপ্তর সম্পাদক মো. আবুল বাশারের বিরুদ্ধে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতির কাছে অভিযোগ দিয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা। আবুল বাশার যেন সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে না পারেন সেজন্য স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ বরাবর চিঠি দিয়েছেন তারা।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি বরাবর পাঠানো চিঠিতে তারা স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার রাজনীতির সঙ্গে মো. আবুল বাশার যেন সম্পৃক্ত হতে না পারেন এবং তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানান তারা।

চিঠিতে তারা অভিযোগ করেন, আমরা নিম্ন স্বাক্ষরকারী ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আমরা দীর্ঘদিন ধরে ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে দেশের ক্লান্তিলগ্নে বিভিন্ন উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছি। সুনামের সঙ্গে ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে সাবেক হওয়ার পর স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হই।

কিন্তু ঐতিহ্যবাহী এই আদর্শিক সংগঠনকে বিতর্কিত ও কালিমা লেপনের উদ্দেশ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার রাজনীতিতে মরহুম আলহাজ আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মো. আবুল বাশার সম্পৃক্ত হয়ে পড়েছেন। মানিকগঞ্জে মাদকের কারবার ও কিশোর গ্যাং প্রতিষ্ঠায় তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তা গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সব অর্জন দেশ ও জনস্বার্থবিরোধী লোকের কারণে বিলীন হতে বসেছে। এমন পরিস্থিতিতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার রাজনীতিতে মো. আবুল বাশারকে না রাখা এবং তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করছি।

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নকে বিতর্কিত ও কালিমা লেপনকারী লোকের সঙ্গে আমরা নিম্ন স্বাক্ষরকারী সংগঠনে না থাকার ইচ্ছা পোষণ করছি। এ অবস্থায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিদের দিয়ে মানিকগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি গঠনের ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করছি।

চিঠিতে স্বাক্ষরকারীরা হলেন- মানিকগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু বক্কর সিদ্দিক খান তুষার, মো. সেলিম পারভেজ, মো. রফিকুল ইসলাম চৌধুরী রানা, অ্যাডভোকেট সাদিকুল ইসলাম সোহা, মানিকগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিদুজ্জামান মহিদ, মো. এনামুল হক রুবেল ও সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইনামুল ইসলাম সাকিব।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানিকগঞ্জ জেলা শাখার আগামী কমিটিতে শীর্ষপদ পেতে কেন্দ্রে তদবির করছেন অনেকে। তাদের মধ্যে সংগঠনের সাবেক দপ্তর সম্পাদক মো. আবুল বাশারও রয়েছেন। এছাড়া জেলা ছাত্রলীগের অন্য সাবেক নেতারাও রয়েছেন এই দলে। এ অবস্থায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি সামনে রেখে দুটি পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান করছে।

এ বিষয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ জাগো নিউজকে বলেন, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ আমরা পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত মো. আবুল বাশার মোবাইলে জাগো নিউজকে বলেন, এসব যারা করছেন তারা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে করছেন। আমার বিরুদ্ধে এলাকায় কোনো মামলা নেই। আমি জেলা পরিষদের একজন সদস্য। খারাপ হলে চেয়ারম্যান-মেম্বারা আমাকে ভোট দিয়ে জেলা পরিষদের সদস্য করতেন না। আমি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। এসব অভিযোগ দেওয়ার পর কেন্দ্র থেকে মঙ্গলবার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আমাকে কোনো পদে রাখা হবে না। তবুও একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে শত্রুতাবশত এসব করছে।

এইচএস/ইএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]