‘বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা বাতিল করতে বলেছিলেন খালেদা’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১৯ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০২২
ফাইল ছবি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা বাতিল এবং বাংলাদেশের উপর পশ্চিমাদের নিষেধাজ্ঞা আরোপের অনুরোধ করেছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ।

২০১৩ সালের ৩০ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন টাইমস পত্রিকায় খালেদা জিয়া ‘দ্য থ্যাঙ্কসলেস রোল ইন সেভিং ডেমোক্রেসি ইন বাংলাদেশ’ শিরোনামে এক প্রবন্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের এই অনুরোধ করেছিলেন বলে জানান আওয়ামী লীগের এই নেতা।

ড. সেলিম মাহমুদ আজ (শুক্রবার) সকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের ডেটাবেস টিমের এক সভায় এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি এবং তার দলীয় প্রধান খালেদা জিয়া দেশের সার্বভৌমত্ব ও অস্তিত্ব বিদেশীদের কাছে বিকিয়ে দিতে মোটেও কুণ্ঠিত নয়। ওয়াশিংটন টাইমসের প্রবন্ধে খালেদা জিয়া সে কথাই পরিষ্কারভাবে বলেছেন।

ড. সেলিম মাহমুদ বলেন, ঐ প্রবন্ধে খালেদা জিয়া বলেন, বাংলাদেশের পরিস্থিতি সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উদাসীন থাকলে তাকেও এর দায় দায়িত্ব বহন করতে হবে। কারণ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক আনুগত্য অন্যান্য উদীয়মান পরাশক্তির দিকে ধাবিত হচ্ছে। তার মানে এই নয় যে, যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য এজেন্সি কিছুই করছে না। ছয় মাস আগে বিশ্ব ব্যাংক বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ইনফ্রাস্ট্রাকচার প্রকল্প পদ্মা সেতু থেকে প্রায় দুই বিলিয়ন ডলারের অর্থায়ন প্রত্যাহার করেছে এবং এই প্রকল্পে দুর্নীতি ও অর্থ তছরুপের তদন্ত করার পরামর্শ দিয়েছে। খালেদা জিয়ার এই মন্তব্যে বোঝা যায়, বাংলাদেশের পদ্মা ব্রিজে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন বাতিল হওয়ার বিষয়টি তার কাছে অত্যন্ত স্বস্তিদায়ক ছিল।

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া লেখেন, তাদের (যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমাদের) এসব পদক্ষপকে হতে হবে অবশ্যই শক্তিশালী ও দৃশ্যমান, যেন আমাদের জনগণ তা দেখতে এবং শুনতে পারে। এর মাধ্যমেই সারাবিশ্বকে গণতন্ত্রায়ণে যুক্তরাষ্ট্রের নিজের মিশন অব্যাহত রাখার ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারবে। বাংলাদেশের গণতন্ত্র রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র ও সারা বিশ্বের কোনো কিছু করার এখনই উপযুক্ত সময়।

বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা বাতিল হওয়ার পর অর্থাৎ প্রবন্ধটি প্রকাশিত হওয়ার ছয় মাস পর বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয় যে, লেখাটি খালেদা জিয়ার নয়। ওয়াশিংটন টাইমসে ২০১৩ সালের ৩০ জানুয়ারি প্রকাশিত নিবন্ধটি খালেদা জিয়ার-এটি নিশ্চিত হয়েই তা ছাপানো হয় বলে মার্কিন দৈনিকটির নির্বাহী সম্পাদক ডেভিড এস জ্যাকসন বাংলাদেশের গণমাধ্যমকে জানান। মার্ক পার্সি নামে লন্ডনভিত্তিক একজন এজেন্টের মাধ্যমে ওয়াশিংটন টাইমস নিবন্ধটি পায় বলে সেলিম মাহমুদ জানান।

এসইউজে/এমএইচআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]