২৭ রোজার আগেই বেতন-বোনাস পরিশোধ করুন: জিএম কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৭ পিএম, ২৪ এপ্রিল ২০২২

২৭ রোজার আগেই গণমাধ্যমসহ তৈরি পোশাক ও বেসরকারি খাতে কর্মরতদের বেতন-বোনাস এবং বকেয়া পাওনার শতভাগ পরিশোধ করার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের।

তিনি বলেন, অনেকগুলো গণমাধ্যমে সাংবাদিকদের বেশ কয়েক মাসের বেতন বকেয়া আছে। সেখানে কর্মরত সাংবাদিক ও স্টাফরা পরিবার-পরিজন নিয়ে সীমাহীন দুঃখ-কষ্টে আছেন। পোশাক খাতের লাখ লাখ শ্রমিক ঈদে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরেন। স্বজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে শিকড়ের টানে ছুটে যান তারা। পোশাক খাতসহ বেসরকারি সব খাতে কর্মরতদের বকেয়া বেতন-ভাতা ও ঈদ বোনাস পরিশোধ করা জরুরি।

রোববার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের কাউন্সিল হলে জাপার কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তিনি এ দাবি জানান।

বেতন বকেয়া থাকায় বেসরকারি খাতের অনেক কর্মী বাসা ভাড়া দিতে পারছেন না উল্লেখ করে জিএম কাদের বলেন, এমনকি টাকার সংকটে তাদের পরিবারের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও ওষুধের বন্দোবস্তও হচ্ছে না। অনেকে সন্তানদের স্কুল-কলেজের বেতন বা কোচিং ফি দিতে হিমশিম খাচ্ছেন।

বর্তমান এ বাস্তবতায় আসছে ঈদুল ফিতরে সহায়তার হাত বাড়িয়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ্য করতে বিত্তবানদের প্রতিও আহ্বান জানান জিএম কাদের।

সভাপতির বক্তব্যে জাপা চেয়ারম্যান আরও বলেন, একদিকে সাধারণ মানুষের সীমাহীন অর্থনৈতিক কষ্ট, অন্যদিকে একদল মানুষ টাকা রাখার জায়গা পাচ্ছে না। হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করছে। সরকার তাদের তালিকা প্রকাশ করছে না। মনে হচ্ছে, সরকার পাচারকারীদের সহায়তা করছে। সামাজিক ও অর্থনৈতিক বৈষম্য চরম আকার ধারণ করেছে। অথচ এ বৈষম্যের বিরুদ্ধে আমারা সংগ্রাম করেছি।

মানুষের কষ্টে যারা চুপ করে থাকে তাদের দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নেওয়ার দরকার নেই বলেও মন্তব্য করেন জিএম কাদের।

জাপা মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, সরকারি দলের দুর্নীতি ও দুঃশাসনে দেশের মানুষ অতিষ্ঠ। ঈদের পরে আমরা মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে রাজপথে থাকবো।

এসএম/এমকেআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]