দেশ বাঁচাতে এ সরকারকে হটানো দরকার: আব্দুস সালাম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৬ পিএম, ০৭ আগস্ট ২০২২
জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এনডিএমের প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও ঢাকা মহানগর, দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম বলেছেন বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপিকে ক্ষমতায় আনতে নয়, দেশকে বাঁচাতে প্রতিবাদ করা দরকার। লুটপাটকারী এ সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটানো দরকার।

রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গণবিরোধী উল্লেখ করে তা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদী অবস্থান ও গণস্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচির আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (এনডিএম)। ওই কর্মসূচিতে আব্দুস সালাম এমন মন্তব্য করেন।

আব্দুস সালাম বলেন, বর্তমান সরকারকে হঠাতে আন্দোলনে নামা ছাড়া কোনো উপায় নেই। যদি আমরা দেশকে বাঁচাতে চাই, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে চাই, মৌলিক অধিকারগুলোকে রক্ষা করতে চাই, ভোটাধিকার ফিরে পেতে চাই তাহলে এ সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটানোর কোনো বিকল্প নেই।

বিএনপির এ নেতা বলেন, ভোলায় লোডশেডিং ও জ্বালানিখাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে করা বিক্ষোভ সমাবেশে আমাদের দুই কর্মীকে কীভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে তা সবাই দেখেছেন। এমন পরিস্থিতিতে আমাদের কর্মীরা জনগণের পক্ষ থেকে হরতালের দাবি তুলেছিলেন।

দেশ বাঁচাতে এ সরকারকে হটানো দরকার: আব্দুস সালাম

‘কিন্তু আমরা দেশের অর্থনীতির কথা চিন্তা করে হরতাল দিইনি। হরতাল দিলে বর্তমান পরিস্থিতিতে জনগণ আরও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। অথচ পরের দিনই দেখলাম, সরকার অবিবেচকের মতো মাঝরাতে জ্বালানি তেলের দাম এতটাই বাড়িয়েছে, যা দেশের ইতিহাসে এর আগে হয়নি।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের লোকজন জানেন, জনগণ তাদের সঙ্গে নেই। জনগণের কথা যদি তারা চিন্তা করতেন, তাহলে জ্বালানি তেলের দাম বাড়াতেন না। তারা জানেন, জনগণ তাদের ভোট দেবে না, জনগণের ভোট তাদের দরকারও নেই। মাঝরাতে তারা প্রশাসন দিয়ে ভোট করাবে।

জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের (এনডিএম) সভাপতি ববি হাজ্জাজের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন নাগরিক ঐক্যের সাংগঠনিক সম্পাদক সাকিব আনোয়ারসহ এনডিএমের অন্য নেতারা।

আরএসএম/এসএএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।