সরকার পতনে জনগণ সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছে: ফখরুল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ১৮ আগস্ট ২০২২
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর/ ফাইল ছবি

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণে দেশে আজ ভয়াবহ নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। মানুষ আজ অধিকারহারা। তাদের জানমালের কোনো নিরাপত্তা নেই। জনগণের অন্যতম মৌলিক অধিকারগুলো ধুলায় লুটিয়ে দেওয়া হয়েছে। গুম, খুন ও ক্রসফায়ারের কারণে সমাজে আজ আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী করতে কেউ যাতে সাহসী না হয় সেজন্য যুবলীগ ও ছাত্রলীগকে দানবে পরিনত করা হয়েছে। তাদের দিয়ে বিএনপিসহ বিরোধী দলের ওপর আক্রমণের মাত্রা বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, ক্ষমতাসীনরা মানুষের ভোটাধিকারসহ নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে গণতন্ত্রকে দাফন করে দিয়েছে। বর্তমান আওয়ামী সরকার সন্ত্রাস নির্ভর সরকার বলেই দলীয় ক্যাডাররা আগ্রাসী ভূমিকা পালন করছে। ফলে রাষ্ট্র-সমাজে চলছে চরম বিশৃঙ্খলা। বর্তমানে নব্য বাকশালী ব্যবস্থা বিশ্বের সব কর্তৃত্ববাদকে অতিক্রম করেছে। তাদের বেপরোয়া দুঃশাসনে সর্বত্র মানুষের আর্তনাদ শোনা যায়।

ফখরুল বলেন, বুধবার (১৭ আগস্ট) খুলনায় বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মীসভায় আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলা তারই ধারাবাহিকতার একটি অংশ। সরকারের চলমান নীপড়ন নির্যাতন দেশ থেকে বিরোধী দলকে নিশ্চহ্ন করার মাস্টারপ্ল্যান। সব কুকীর্তি ও দুঃশাসনের জন্য বর্তমান সরকারকে জনগণের কাছে একদিন চরমমূল্য দিতে হবে। গণতান্ত্রিক অধিকার পুনদ্ধারের জন্য স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করতে দৃঢ়-অঙ্গীকারাবদ্ধ। তুমুল আন্দোলনের মাধ্যমে এ ফ্যাসিস্ট সরকারের পতন ঘটাতে জনগণ সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছে।

কেএইচ/এমএএইচ/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।