বিএনপি ও জামায়াতের আদর্শ এক নয়: টুকু

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০১ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০২২

ধর্মভিত্তিক একাধিক রাজনৈতিক দলের সঙ্গে নির্বাচনী জোট হলেও বিএনপি ও জামায়াতের ‘আদর্শ এক নয়’ বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন ধরে বিএনপিকে ‘হাইফেনে’ যুক্ত করে ফেলেছে দাবি করে তিনি বলেছেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে দেখেছি, আওয়ামী লীগ বিএনপির পেছনে হাইফেন দিয়ে জামায়াতকে যুক্ত করে ফেলেছে। গতকালও দেখলাম আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, ‘বিএনপি-জামায়াত’। কিন্তু বিএনপি অন্য একটা আদর্শের দল। বিএনপির সঙ্গে জামায়াতকে যুক্ত করার কিছু নেই। বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল।

শুক্রবার (৭ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন নয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম নামের একটি সংগঠন।

ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে বিএনপির নির্বাচনী জোট হয়েছিলো উল্লেখ করে টুকু বলেন, এর অর্থ এই না যে আওয়ামী লীগ সারাজীবন বিএনপি-জামায়াত বলবে। আমরা (বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের রাজনৈতিক সখ্যতার বিষয়টি) ওপেন করে দিয়েছি। যুগপৎ আন্দোলন করবো। যার যা শক্তি আছে তা নিয়ে মাঠে আসবো। এখানে প্রতিবন্ধকতার কোনো কারণ নেই। বরং ওপেন করে দিয়ে আজকে একটা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করেছি।

তিনি আরও বলেন, আজকে বিএনপির বাইরে আওয়ামী লীগকে হটানোর পক্ষে যারা আছেন তারা এক হয়ে গেছে। ইনু (হাসানুল হক ইনু), মেনন (রাশেদ খান মেনন) তাদের ক্ষমতার লোভের কাছে আমাদের মুক্তিযুদ্ধকে তাদের পকেটে নেওয়ার যে চেষ্টা তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না। যখন আমরা যুগপৎ আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছি।

জোট করে সবাইকে একসঙ্গে নেওয়া যায় না উল্লেখ করে টুকু বলেন, এখানে কিছু প্রতিবন্ধকতা থাকে। আমরা ২০১৮ সালে তা দেখেছি। অমুক আছে, তমুক নেই। সেটা উপলব্ধি করে তারেক রহমান বলেছেন, যুগপৎ আন্দোলন করবো। এই যুগপৎ আন্দোলনের মাধ্যমে যে প্রতিবন্ধকতা ছিলো সেটা উঠে গেছে। এখন আমরা সবাইকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথে আন্দোলন করবো। এবার জয়লাভ করবোই।

তিনি বলেন, সরকার এখন ক্ষমতা হারানোর ভয়ে ভীত। আন্দোলনের শুরুতে আমাদের পাঁচজনকে গুলি করে হত্যা করলো। মান্না আন্দোলন করে নেতা হয়েছে, আমিও রাস্তায় স্লোগান দিয়ে আজকে এখানে এসেছি। আমাদের জীবনে দেখি নাই আন্দোলনের শুরুতে পাঁচজনকে জীবন দিতে হয়েছে। পৃথিবীর ইতিহাসে কোথাও এমন নেই।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আওয়ামী লীগ নেতাদের দেশের মানুষ পছন্দ করছে না। দেশের সাত কোটি মানুষ এখনো গরিব, চার কোটি বেকার। দেশের পরিস্থিতি ভালো নয়।

এ অবস্থায় অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন দাবি করেন তিনি। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বিএনপি মহাসচিব তত্ত্বাবধায়ক সরকারের যে রূপকল্প ঘোষণা করবেন তা নিয়ে যেন জনমনে প্রশ্ন তৈরি না হয় সে আহ্বানও জানান তিনি।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক ও সংগঠনের সভাপতি সম্পাদক শামা ওবায়েদ বলেন, শেখ হাসিনার সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে বিএনপি যাবে না। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

কেএইচ/এমকেআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।