আওয়ামী সরকার টিকে থাকার জন্য ‘মরণকামড়’ দিতে চাচ্ছে: রিজভী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:০৩ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

সরকারের নির্দেশিত গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর যৌথ প্রযোজনায় দুষ্কৃতিকারীরা রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, আওয়ামী সরকার টিকে থাকার জন্য ‘মরণকামড়’ দিতে চাচ্ছে। কিন্তু ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী মানুষের মনের কথা উপলব্ধি করতে পারছে না।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) রাতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় সরকারের তীব্র সমালোচনা করে রিজভী বলেন, আজ মাগরিবের পরপরই বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় দুষ্কৃতিকারীরা। এটি আওয়ামী সরকারের নির্দেশিত গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর যৌথ প্রযোজনা। ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠেয় গণসমাবেশকে বানচাল করার জন্য এটি পুলিশের মাস্টারপ্ল্যান।

রিজভী বলেন, কিছুক্ষণ আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন— নয়াপল্টনে যারা জমায়েত করবে তাদের গ্রেফতার করা হবে। সুতরাং এ গ্রেফতারের প্রেক্ষাপট তৈরি করার জন্যই ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। কয়েকদিন ধরে নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণ ও আগুন সন্ত্রাসের সূত্রপাত করা হয়েছে।

পুলিশের আইজি বলেছেন— বিএনপিকে যেখানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে সেখানেই সমাবেশ করতে হবে। অর্থাৎ পুলিশপ্রধান আওয়ামী চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়েই কথাবার্তা বলছেন। তিনি কোনো ন্যায়নীতি পরোয়া করছেন না। নিষ্ঠুর কর্তৃত্ববাদী আওয়ামী দুঃশাসনের সেবক হিসেবে কাজ করছেন। সেজন্য নয়াপল্টনে পরিকল্পিত ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে গণগ্রেফতারের অভিযান চালানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, গণসমাবেশকে বানচাল করতেই সন্ধ্যায় শেখ হাসিনার নির্দেশে বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। তবে ১০ ডিসেম্বর নিয়ে যতই নীলনকশা করা হোক বিএনপি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে নয়াপল্টনের গণসমাবেশ সফল করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

গত তিনদিনে এ পর্যন্ত ৫৩৬, আজ দুপুর পর্যন্ত ২৪০, দুপুর থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সাত গ্রেফতার করা হয়েছে। গত তিনদিনে ৭৮৩ জনের অধিক দেশব্যাপী গ্রেফতার ও মিথ্যা মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে দায়ের করা বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার ও তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

কেএইচ/এমএএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।