বিএনপির সমাবেশকে গণতন্ত্র মঞ্চের সমর্থন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৭ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

আগামী ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশকে রাজনৈতিক ও নৈতিক সমর্থন দিয়েছে গণতন্ত্র মঞ্চ। জোটের নেতারা বলেছেন, বিএনপির এ শান্তিপূর্ণ সমাবেশে সরকার যেভাবে উস্কানি দিচ্ছে তাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে সরকারি দল ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দায় নিতে হবে।

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুর ২টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় নাগরিক ঐক্যের অফিসে বিএনপির প্রতিনিধিদের সঙ্গে গণতন্ত্র মঞ্চের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে গণতন্ত্র মঞ্চের শরিক দল বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, সরকারের পরিবর্তন ও বর্তমান অগণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থার পরিবর্তনের জন্য যুগপৎ আন্দোলন করতে বিএনপি এবং গণতন্ত্র মঞ্চ ঐকমত্য হয়েছে। আন্দোলন কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায় তার জন্য আগামী কয়েক দিনের মধ্যে একটি লিয়াজো কমিটি গঠন করা হবে। আগামী ১০ তারিখে আগে এ কমিটি গঠন করা হবে।

তিনি বলেন, বিএনপির আগামী ১০ তারিখের সমাবেশে গণতন্ত্র মঞ্চের রাজনৈতিক ও নৈতিক সমর্থন দিয়েছে আজকের বৈঠক থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আজ এখানে যারা উপস্থিত আছেন, তারা শুরু থেকে লড়াইয়ে আছেন গত ১৩-১৪ বছর ধরে। পরস্পরের মধ্যে একটা সর্ববৃহৎ ঐক্য গড়ে তোলে এই ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার কথা ভাবছিলাম যে যার জায়গা থেকে। বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলবার জন্য হয়তো এক মঞ্চ কার্যকর হবে না, তাই আমরা যুগপৎ প্রচেষ্টার মধ্যে যাই।

যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলার সর্বশেষ পর্যায়ে এসে গেছে উল্লেখ করে মান্না বলেন, বড় হিসেবে বিএনপির পক্ষ থেকে যেমন উদ্যোগ ছিল, অন্যান্য দলের সঙ্গে আলোচনা করার, তেমনি আমাদের জোটের পক্ষ থেকেও সবার সঙ্গে কথাবার্তা বলেছি। সেই হিসেবে আজ বিএনপি নেতারা আমাদের অফিসে এসেছেন।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি এবং গণতন্ত্র মঞ্চ যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তুলবে। এ সরকারের পতন ঘটিয়ে, তারপরও যেটা আমরা বলতে পছন্দ করি, সেটা হলো সরকার ও শাসন ব্যবস্থার পরিবর্তন করবো। এই ক্ষেত্রে বিএনপির সঙ্গে আমাদের বহু ক্ষেত্রে মতের মিল দেখতে পারছি। তারা বেশকিছু প্রস্তাবনা আমাদের কাছে পাঠিয়েছে, আমরা কিছু প্রস্তাবনা তাদের কাছে পাঠিয়েছি। সেখানেও আলোচনা অব্যাহত আছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের আলোচনা বিএনপির ১০ তারিখের সমাবেশের বিষয়টি এসেছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি এ কর্মসূচি ধারাবাহিকভাবে অগ্রসর করবো। অগ্রসর করার জন্য যে দুইটি ভিত্তি সেটা নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাবো। লিয়াজো কমিটি নিজেদের মধ্যে আরও ঘনঘন কথা বলে আন্দোলন এগিয়ে নেবে। আশা করি আগামীতে বিএনপি ও গণতন্ত্র মঞ্চকে মাঠে যুগপৎ আন্দোলনে দেখতে পাবেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী, ভাইস-চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান, শামসুজ্জামান দুদু, সাবেক সংসদ সদস্য জহির উদ্দিন স্বপন।

বৈঠকে গণতন্ত্র মঞ্চের শরিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জুনায়েদ সাকি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) সাধারণ সম্পাদক শহিদ উদ্দিন স্বপন, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম বাবলু, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের হাসনাত কাইয়ুম, গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান প্রমুখ।

কেএইচ/আরএডি/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।