গোলাপবাগে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দিলো ডিএমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০০ পিএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২
গোলাপবাগ মাঠ

বিএনপিকে রাজধানীর গোলাপবাগ মাঠে সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, বিএনপির প্রস্তাবিত দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তাদের গোলাপবাগ মাঠে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (১০ ডিসেম্বর) বেলা ১১টা থেকে সমাবেশ শুরু হবে বলে জানা গেছে। গোলাপবাগ মাঠটি সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালের কাছে অবস্থিত।

এর আগে মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের একই কথা জানান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন।

jagonews24

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন

তিনি বলেন, আমাদের প্রত্যাশা ছিল কমলাপুর স্টেডিয়ামে গণসমাবেশ করবো। সেখানে যেহেতু খেলা চলছে এবং কর্তৃপক্ষ আমাদের অন্য একটা জায়গায় বিবেচনা করতে বলেছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা গোলাপবাগ মাঠের কথা বলেছি। উনারা (ডিএমপি) বিষয়টি লিখিতভাবে জানাতে বলেছেন। আমরা লিখিতভাবে জানিয়েছি। এরপর উনারা সেখানে গণসমাবেশ করার জন্য বলেছেন।

সমাবেশে নিরাপত্তার বিষয়ে ডিবিপ্রধান সাংবাদিকদের বলেন, সমাবেশের শর্ত আগেরগুলোই থাকবে। নিরাপত্তায় থাকবে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ। পোশাকে এবং সাদা পোশাকে পুলিশের সমন্বয়ে যেভাবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল, সেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা গোলাপবাগ মাঠে থাকবে। আমাদের টিম অলরেডি কাজ করছে।

jagonews24

পল্টন এলাকায় পুলিশের টহল

আসন্ন নির্বাচন উপলক্ষে বিএনপি বিভিন্ন বিভাগীয় শহরগুলোতে গণসমাবেশ করে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার (১০ ডিসেম্বর) ঢাকায় সমাবেশের সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু পুলিশ নয়াপল্টনে সমাবেশের অনুমতি দেয়নি। এর বদলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে বলা হয় বিএনপিকে। তবে বিএনপি নয়াপল্টনে সমাবেশে অনড় থাকে।

jagonews24

একপর্যায়ে বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপি নেতাকর্মীরা জমায়েত হলে পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়। এতে মকবুল নামে একজন মারা যান। আহত হন অনেকে। এরপর বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, প্রচার সম্পাদক ও মিডিয়া সেলের সদস্য সচিব শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানীসহ গ্রেফতার করা হয় প্রায় ৪০০ নেতাকর্মীকে।

সবশেষ শুক্রবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে গ্রেফতার দেখায় ডিবি

টিটি/জেডএইচ/জেএইচ/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।