অভিবাসীদের সম্মানে সিডনিতে ‘হারমনি ডে’ ২১ মার্চ

মো. আবুল কালাম আজাদ
মো. আবুল কালাম আজাদ মো. আবুল কালাম আজাদ , অস্ট্রেলিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৭:৩৯ পিএম, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সমাজে বাস করতে গেলে মিলে মিশে থাকতে হয়। অন্যের প্রতি শ্রদ্ধা, সম্মান ও ভালোবাসা দেখানো সমাজের একটা অংশ। সেটা যেকোনো সংস্কৃতির হোক না কেন। অন্যের সংস্কৃতিকে সম্মান দেখাতে পৃথিবীতে সবচেয়ে এগিয়ে আছে অস্ট্রেলিয়া। হারমনি ডে তারই একটা অংশ। পুরো অস্ট্রেলিয়া জুড়ে মার্চে পালিত হয় হারমনি ডে।

অস্ট্রেলিয়া বহুজাতিক অভিবাসীদের আবাসস্থান। আর এ বহুজাতিক অভিবাসীদের সম্মানে অস্ট্রেলিয়ায় প্রতিবছর মার্চ মাসে ‘হারমনি ডে’ পালিত হয়। ১৯৯৯ সাল থেকে বহুজাতিক অভিবাসীদের সম্মানে অস্ট্রেলিয়ায় প্রতিবছর এ পালিত হয়ে আসছে।

অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক বিভিন্ন সামাজিক ও বাষ্ট্রীয়ভাবে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের নিজ নিজ দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য উপস্থাপন করে। হারমনি ডে উদযাপনে পারস্পরিক বিভিন্ন অভিবাসীদের ঐক্য, ঐতিহ্যগত কর্মক্ষমতা, পোশাক, সঙ্গীত, শিল্প, খাদ্য দিয়ে সম্মান জানানো হয়।

Austrelia

আগামী ২১ মার্চ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে সিডনির রিভারউড কমিউনিটি সেন্টারে ক্যান্টারবারি ও বাংকসটাউন হারমনি গ্রুপের অধীনে বার্ষিক ১৩তম দিবস অনুষ্ঠিত হবে। এই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট (সিটি কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি মেয়র) কার্ল সালেহ উত্ত অনুষ্ঠানের আয়োজক বলে জানা গেছে।

ক্যান্টারবারি ও বাংকসটাউন হারমনি গ্রুপ ১৬টি বিভিন্ন কমিউনিটি গ্রুপের প্রতিনিধিত্ব করে এবং ১২০ জনেরও বেশি স্বেচ্ছাসেবকরা একত্রিত হয়ে উৎসবটি সফল করতে সহায়তা করে থাকে।

হারমনির উদ্দেশ্যই হলো বহুজাতিক সংস্কৃতিকে একে অন্যের সঙ্গে পরিচয়ের মাধ্যমে তাদের প্রতি শ্রদ্ধা, সম্মান ও ভালোবাসা প্রদর্শন করা। হারমনির মাধ্যমে যে কোন জাতিকে আরো সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী করে তোলা যায়।

টিকিট বুকিং : ফোন: ০২ ৯৫৩৩ ০১০০

এমআরএম/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :