পর্তুগালে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

নাঈম হাসান পাভেল
নাঈম হাসান পাভেল নাঈম হাসান পাভেল , পর্তুগাল প্রতিনিধি লিসবন, পর্তুগাল থেকে
প্রকাশিত: ০৬:৩৭ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালন করা হয়েছে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবন এবং লিসবন মিনিসিপালিটির ওয়ার্ড জুইন্তা ফ্রেগ্রেজিয়া আরিওসের যৌথভাবে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনের ক্যাম্পো মার্টিয়ারেস দ্য প্যাট্রিয়া তে বায়ান্নর শহীদদের স্মরণে নির্মিত স্থায়ী শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সকাল ১০টায় ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবনের রাষ্ট্রদূত রুহুল আলম সিদ্দিকী। এরপরপরই পর্তুগালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, লিসবন মিউনিসিপালিটি, জুইন্তা ফেগ্রেজিয়া আরিওসের প্রতিনিধিরা ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

Portugal

বাংলাদেশি সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন গুলোর পক্ষ থেকে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পর্তুগাল, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল পর্তুগাল, বৃহত্তর নোয়াখালী অ্যাসোসিয়েশন ইন পর্তুগাল, বৃহত্তর ফরিদপুর অ্যাসোসিয়েশন ইন পর্তুগাল, পর্তুগাল বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ অ্যাসোসিয়েশন, পর্তুগাল ছাত্রলীগ, হবিগঞ্জ অ্যাসোসিয়েশন অব পর্তুগাল, হবিগঞ্জ জেলা কমিউনিটি অব পর্তুগালসহ পর্তুগালে বসবাসরত বাংলাদেশিদের আরো বেশ কিছু রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন।

পরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনায় রাষ্ট্রদূত রুহুল আলম সিদ্দিকী বক্তব্য রাখেন। এরপর পর্তুগালের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের প্রতিনিধি, লিসবন মিনিসিপালিটির ওয়ার্ড জুইন্তা ফ্রেগ্রেজিয়া আরিওসের প্রেসিডেন্ট মার্গারিতা মার্টিন্স ভাষা দিবস নিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।

Portugal

উল্লেখ্য, পর্তুগালের রাজধানী লিসবন এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর পোর্তোতে দুটি স্থায়ী শহীদ মিনার স্থাপিত হয়েছে। বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবন ও জুইন্তা ফ্রেগেজিয়া আরিওস এর যৌথ উদ্যোগ ও প্রচেষ্টায় ২০১৫ সালে লিসবনের ক্যাম্পো মার্টিয়ারেস দ্য প্যাট্রিয়া পার্কে স্থায়ী শহীদ মিনারটি নির্মিত হয়েছিল। বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পোর্তো এবং পোর্তো মিউনিসিপালিটির যৌথ উদ্যোগে ২০১৬ সালে পোর্তো শহরের প্রাণ কেন্দ্র বিখ্যাত সাও বেন্তে নামক জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয় পর্তুগালে বাংলাদেশের দ্বিতীয় স্থায়ী শহীদ মিনার।

এসএইচএস/পিআর

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com