মালয়েশিয়ায় টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক সেমিনার

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৯:০৫ এএম, ০৫ এপ্রিল ২০১৯

মালয়েশিয়ায় পিএইচডি অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের আয়োজনে টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) ইউনিভার্সিটি পুত্রা মালয়েশিয়ার স্কুল অব গ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ ভবনে জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বিষয়ক এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার প্রধান আলোচক ছিলেন। সেমিনারে ড. বদিউল আলম মজুমদার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কিভাবে ভূমিকা রাখাতে পারে তা নিয়ে বিস্তারিত দিক নির্দেশনা দেন। সেমিনারে বাংলাদেশসহ ১০টি দেশের গবেষকদের এসডিজি নিয়ে বিশ্ব মানের জার্নালগুলতে গবেষণা পত্র লেখার আহ্বান জানিয়ে সুজন সম্পাদক বলেন, ‘ভবিষ্যৎ আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংক্রান্ত একগুচ্ছ লক্ষ্যমাত্রা জাতিসংঘ প্রণয়ন করেছে এবং ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য বৈশ্বিক লক্ষ্যমাত্রা’ হিসেবে লক্ষ্যগুলোকে প্রচার করেছে। প্রত্যেকের নিজ নিজ অবস্থান থেকে এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে প্রচারণা চালাতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘দারিদ্র্য দূরীকরণ, খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টিমান উন্নয়ন, মানসম্পন্ন শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি, নারীর সর্বজনীন ক্ষমতায়ন, নিরাপদ পানি ও স্যানিটেশন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলাসহ সামুদ্রিক সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।’

এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশের ভূমিকা নিয়ে ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘বাংলাদেশ জাতিসংঘের নির্ধারিত এমডিজির লক্ষ্য অর্জনে অনুসরণীয় সাফল্য দেখিয়েছে। বাংলাদেশকে বলা হয় এমডিজির ‘রোল মডেল।’ এখন এ সফলতা ধরে রাখতে হলে দেশে বিদেশের সব গবেষকদের এসডিজি নিয়ে গবেষণা করতে হবে। নিজেদের মধ্যে এমডিজি নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। তাহলেই আমাদের অর্জন বা উন্নয়ন টেকসই হবে।’

সেমিনারে বিভিন্ন দেশের অর্ধ শতাধিক পিএইচডি গবেষকদের উপস্থিতিতে ইউনিভার্সিটি পুত্রা মালইয়েশিয়ার থিসিস এবং স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স বিভাগের অধ্যাপক ড. রুসলি আব্দুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ড. বদিউল আলম মজুমদারকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সেমিনারের আয়োজক ছিলেন ইউনিভার্সিটি পুত্রা মালয়েশিয়ায় পিএইচডি অধ্যয়নরত মো. আব্দুর রউফ, মো. নাজমুল হক সুমন এবং অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করেন আতিয়া ইসলাম।

এএইচ/এমকেএইচ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :