পর্তুগালে ইপির নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের প্যানেলের জয়ের সম্ভাবনা

মো. রাসেল আহম্মেদ
মো. রাসেল আহম্মেদ মো. রাসেল আহম্মেদ
প্রকাশিত: ০৮:৩৫ এএম, ২০ মে ২০১৯

আসছে ২৬ মে পর্তুগালে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট (ইপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইউরোপীয় পার্লামেন্টে পর্তুগালের প্রতিনিধি নির্ধারণের লক্ষে এ নির্বাচন হতে যাচ্ছে।

নবীন-প্রবীণদের সমন্বয়ে পেদ্র মারকেসকে প্রধান করে ২৭ সদস্যের প্রার্থীর মনোনয়ন দিয়েছেন ক্ষমতাসীন সোশ্যালিস্ট পার্টির (পিএস) মহাসচিব ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী এন্থোনিও কোস্টা।

গত ৪ বছর ক্ষমতায় থাকা সোশ্যালিস্ট পার্টি যেভাবে সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে দেশের উন্নতি সাধন করেছে তাতে দেশের জনগণের পূর্ণ আস্থা আছে এই সোশ্যালিস্ট পার্টির প্রতি। এমনটি মনে করছেন ক্ষমতাসীন সোশ্যালিস্ট পার্টির স্থানীয় নেতা ও লিসবন সিটি কাউন্সিলর রানা তসলিম উদ্দিন।

তা ছাড়া অভিবাসন নীতি সহজিকরণ এবং পর্তুগালের ভিশন ২০২০ বাস্তবায়নে সোশ্যালিস্ট পার্টির সাফল্য অভাবনীয়।

সোশ্যালিস্ট পার্টির নেয়া নানা উদ্যোগে অভিবাসীসহ স্থানীয় পর্তুগিজ মানুষজনের কাছে পার্টির জনপ্রিয়তা বেশ ভালো। তাই বাংলাদেশ কমিউনিটিসহ অন্যান্য অভিবাসী কমিউনিটির পক্ষ থেকে এ নির্বাচনে সোশ্যালিস্ট পার্টির মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দেয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া এ নির্বাচনে পিএসডি সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি, সিডিইউ ইউনিটারি ডেমোক্রেটিক পার্টিসহ আরও ছোট ছোট কিছু দল অংশগ্রহণ করছে।

এ নিবার্চনে আগামী ২৬ মে যারা ভোট দিতে পারবেন না, ইতোমধ্যে গত ১৯ মে তারা অগ্রিম ভোট দেয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

নির্বাচনে জয়লাভকারী প্যানেল ২০২৪ সাল পর্যন্ত ইউরোপীয় পার্লামেন্টে পর্তুগালের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবে।

জেডএ/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :