লন্ডনে ফটিকছড়ি কমিউনিটি ইউকে’র উদ্যোগে ঈদ পুনর্মিলনী

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৩২ এএম, ১৭ জুন ২০১৯

দেশ থেকে হাজার মাইল দূরে থাকলেও নিজের সংস্কৃতিকে এতটুকু ভুলে থাকেনি ফটিকছড়িবাসী। বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে গত শনিবার (১৫ জুন) পূর্ব লন্ডনের কিংস হলে বিপুলসংখ্যক ফটিকছড়িবাসীর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় ঈদ পুনর্মিলনী।   লন্ডনে অবস্থিত ফটিকছড়ি কমিউনিটি ইউকে সংগঠন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। 

ফটিকছড়িবাসীর স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে আড়ম্বর ও জমজমাট এ অনুষ্ঠান পরিণত হয় মিলনমেলায়। সংগঠনের কার্যকরী সহ-সভাপতি ব্যারিস্টার আলী রেজা এবং যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক সরওয়ার হোসেনের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ ইসহাক চৌধুরী।

শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন আব্দুল হালিম। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলমগীর, ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন, জাগির আলম, মুহিব উদ্দিন, শওকত মাহমুদ টিপু, কাউন্সিলর সৈয়দ ফিরোজ গনি, সেলিমুল হক, মিজানুর রহমান, সাজ্জাদুর রহমানসহ আরও অনেকে।

UK-2

তিন পর্বে অনুষ্ঠিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আকতারুল আলম, সহ-সভাপতি ব্যারিস্টার আব্বাস চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ অনুপম সাহা, যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ আজমল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জাহিদুল আলম মাসুদ, শিক্ষা সম্পাদক ইব্রাহিম জাহানসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

UK-3

দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মিরা বড়ুয়া ও আরিফ সোবহান। অনুষ্ঠানে গান, নাচ ও কৌতুক পরিবেশন করেন লন্ডনের স্বনামধন্য শিল্পীরা।

তৃতীয় পর্বে মাসুদুর রহমানের পরিচালনায় র‍্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। ১০টি পুরস্কারের মধ্যে সবার দৃষ্টি ছিল প্রথম পুরস্কার ৫০ ইঞ্চি টেলিভিশনে। পুরো অনুষ্ঠানে র‍্যাফেল ড্র ছিল অত্যন্ত আকর্ষণীয়।

Uk-4

এ ছাড়াও অনুষ্ঠান উপলক্ষে একটি ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। সম্পাদক জাহিদুল আলম মাসুদ ও প্রধান সমন্বয়ক মাসুদুর রহমানের সহযোগিতায় ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন করেন আগত মেহমানরা।

সভাপতির বক্তব্যে ইসহাক চৌধুরী বলেন, ‘আজকের অনুষ্ঠান আমাদের এবং এই অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য হলো নতুন প্রজন্মের মাঝে সেতুবন্ধন তৈরি করা। আমাদের যুবকরাই পারে নিজস্ব সংস্কৃতিকে ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে। এজন্য এই অনুষ্ঠানের বিকল্প নেই।’

এসআর/পিআর

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :