ডেনমার্কে বঙ্গবন্ধু কাপ ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা

হাবিবুল্লাহ আল বাহার
হাবিবুল্লাহ আল বাহার হাবিবুল্লাহ আল বাহার
প্রকাশিত: ০৯:৫২ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৯

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী সামনে রেখে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শনিবার রাজধানী কোপেনহেগেনের স্থানীয় ইনডোর স্টেডিয়ামে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু কাপ আন্তর্জাতিক ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাংলাদেশ ছাড়াও ডেনমার্ক, সুইডেন, ভারত, শ্রীলংকা, নেপাল, ইন্দোনেশিয়া, পোল্যান্ড, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের অন্তর্ভুক্ত ক্লাবের ৪০টি দল অংশগ্রহণ করে। ফাইনালে হেয়ারলো ক্লাবকে পরাজিত করে ব্রনডভি ক্লাব জয়লাভ করে। কোপেনহেগেন ছাড়াও ডেনমার্কের অন্যান্য শহরের বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত, গীতা ও ত্রিপিটক পাঠ করা হয়। এরপরে বাংলাদেশের ও ডেনমার্কের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়।

পরে বঙ্গবন্ধুর জীবনের আদর্শ ও আত্মত্যাগ শীর্ষক আলোচনা ও প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী মোল্লা লিংকনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবদুল মুহিত।

Germany

এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. শহীদ, সংগঠনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুব জামান আলীম, তাইফুর রহমান ভূঁইয়া, সামি দাস, সাহাবুদ্দিন ভূঁইয়া, মাসুদ চৌধুরী, ইনসান ভুইয়া, শফিকুল ইসলাম, আ ন ম আব্দুল খালেক আরিপ, অলিউল আজাদ লাভ্লু, অরুন দাস, মনজুর আহম্মেদ লিমন, টিপু গোমস্থা, রেজাউল করিম রাজু, শৈবাল মাহমুদ শাহীন প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, প্রবাসে বেড়ে উঠা নতুন প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও আত্মত্যাগ তুলে ধরতে এ ধরনের আয়োজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

প্রধান অতিথি মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, মুজিববর্ষ সামনে রেখে এ ধরনের আয়োজন বাংলাদেশ সৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধুর যে অবদান তা নতুন প্রজন্মকে জানিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়। তিনি ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের নেতাদেরকে এমন অনুষ্ঠানের জন্য ধন্যবাদ জানান।

এমআরএম/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]